25 Sep 2021, 5:24 AM (GMT)

Coronavirus Stats

33,624,419 Total Cases
446,690 Death Cases
32,876,319 Recovered Cases

Top News

  • রাজনীতি ছাড়লেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

    স্টাফ রিপোর্টারঃ রাজনীতি ছাড়লেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। শনিবার ফেসবুকেপোস্ট করে দল ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন তিনি। এদিন বাবুলের দীর্ঘ পোস্টে তাঁর রাজনীতি ছাড়ার কারণের ব্যাখ্যা ছাড়াও বহু মান অভিমানের উল্লেখ রয়েছে। সঙ্গে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী জানিয়েছেন, অন্য কোনও দলে যোগ দেবেন না তিনি। কেউ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগও করেননি। কিছুটা গুছিয়ে নিয়ে রাজনীতির বাইরে সমাজসেবা করতে চান তিনি।পরে অবশ্য নিজের ফেসবুক পোস্ট থেকে অন্য দলে যোগদানের প্রসঙ্গটি মুছে দেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

    ফলে জল্পনা‌ আরও বাড়িয়ে তুললেন মন্ত্রী নিজেই। তবে অভিমানের সুরও শোনা গিয়েছে বাবুলের গলায়। তিনি বলেছেন, ২০১৪-র নির্বাচনে রাজ্য থেকে বিজেপির একমাত্র সাংসদ ছিলেন তিনি। তার পর ২০২১-এ দলের ব্যাপক জয় হয়েছে। নতুন সাংসদরা মন্ত্রী হয়েছেন। তাঁদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিনি।সঙ্গে বাবুল জানিয়েছেন, যত দ্রুত সম্ভব দিল্লিতে তাঁর বাসভবন ছেড়ে দেবেন তিনি। নেবেন না সাংসদের বেতনও। কেন রাজনীতি ছাড়লেন তিনি? সেই প্রশ্নের জবাবও দিয়েছেন বাবুল। লিখেছেন, ” প্রশ্ন উঠবেই কেনই বা রাজনীতি ছাড়তে গেছিলাম? মন্ত্রিত্ব চলে যাওয়ার সাথে তার কি কোনো সম্পর্ক আছে? হ্যাঁ আছে – কিছুটা তো নিশ্চয় আছে ! তঞ্চকতা করতে চাইনা তাই সে প্রশ্নের উত্তর দিয়ে গেলেই তা সঠিক হবে-আমাকেও তা শান্তি দেবে।” শুধু রাজনীতি বা দল নয়, সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিতে চলেছেন বাবুল সুপ্রিয়।

    ফেসবুকে নিজেই সে কথা জানালেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। ফেসবুকে লেখেন, ‘সামাজিক কাজ করতে গেলে রাজনীতিতে না থেকেও করা যায় – নিজেকে একটু গুছিয়ে নিই আগে তারপর…।’ সঙ্গে লেখেন, ‘হ্যাঁ, কিছু কথা বাকি রয়ে গেল..হয়তো কখনও বলব..আজ নাই বা বললাম..চললাম..।’ বর্তমানে আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়৷ ২০২৪ সাল পর্যন্ত মেয়াদ রয়েছে তাঁর৷ ২০১৪ সালে তৃণমূল কংগ্রেসের দোলা সেনকে হারিয়ে আসানসোলের সাংসদ নির্বাচিত হন বাবুল৷ ২০১৯-এ মুনমুন সেনকে পরাজিত করে দ্বিতীয় বার আসানসোলের সাংসদ নির্বাচিত হন তিনি৷

    বাবুলের রাজনীতি ছাড়ার খবরে জোর শোরগোল শুরু হয়েছে। এখন দেখার, সাংসদকে ধরে রাখতে হস্তক্ষেপ করে কি না বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। না কি অন্য কোথাও নাম লেখান সুরেলা এই শিল্পী।

  • ‘গান করুন, জাতীয় সংগীত রেকর্ড করুন’, চালু হল ‘রাষ্ট্রগান’ পোর্টাল

    সংবাদ সংস্থাঃ ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ তম বছরে পা রাখার আগে ‘রাষ্ট্রগান’ পোর্টাল চালু করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১৫ অগস্টের আগে দেশবাসীর কাছে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার ক্ষেত্রে রেকর্ড গড়ারও আবেদন করেছেন তিনি। স্বাধীনতা দিবসের আগে জুলাই মাসের শেষ রবিবার ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে দেশবাসীকে এই পোর্টালে জাতীয় সংগীত গেয়ে রেকর্ড করার কথা বলেন মোদি।

    তিনি বলেন এটি এমন একটি পোর্টাল যেখানে যে কেউ জাতীয় সংগীত গেয়ে তাঁদের নিজস্ব ভিডিও রেকর্ড করতে এবং আপলোড করতে পারে। রবিবার নিজের রেডিও অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’-এ এই কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘স্বাধীনতার ৭৫ তম বছরে পা রাখতে চলেছি আমরা। সেই উপলক্ষে ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’ পালন করবে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক। এই উৎসবের মধ্যেই রাষ্ট্রগানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার জন্য ‘রাষ্ট্রগান ডট ইন’ নামের একটি পোর্টাল চালু করা হয়েছে। এখানে সবাই জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার ভিডিয়ো রেকর্ড করে পাঠাতে পারবেন।

    আসুন আমরা ৭৫ লক্ষের বেশি ভিডিয়োর লক্ষমাত্রা নিই।’’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এই প্রচারের সঙ্গে আমরা যুক্ত হতে পারি। আমরা ভাগ্যবান যে দেশের ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসের সাক্ষী থাকতে পারব। আমরা সবাই এই দিনটি উদ্‌যাপন করব। আগামী বছর ১২ মার্চ থেকে আমদাবাদের সবরমতী আশ্রমে এই উৎসবের সূচনা হবে।’’

  • ২৪’ এর লক্ষ্যে আজ দিল্লিতে মমতা

    স্টাফ রিপোর্টারঃ ২১’র বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপিকে কাত দেওয়ার পর এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরবর্তী লক্ষ্য রাজধানী দিল্লির মসনদ৷ আর সেই লক্ষ্যে সোমবার অর্থাৎ আজ দিল্লি যাচ্ছেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ যেখানে ঠাসা কর্মসূচি রয়েছে তাঁর৷ ২৬ জুলাই দিল্লি পৌঁছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনও বিশেষ কর্মসূচি নেই বলেই জানা গিয়েছে৷ তবে তৃণমূলের লোকসভা এবং রাজ্যসভার প্রথমসারির নেতা এবং অন্যান্য শীর্ষনেতাদের নিয়ে ঘরোয়া বৈঠক করতে পারেন তৃণমূল নেত্রী৷

    ২৭ জুলাইয়েও তাঁর ঘোষিত কোনও কর্মসূচি নেই বলেই জানা গিয়েছে৷ ওইদিন তিনি সংসদে যেতে পারেন বলে তৃণমূল সূত্রে খবর৷ মমতার এই দিল্লি সফরের সবচেয়ে বড় ইভেন্ট হতে চলেছে ২৮ জুলাই বঙ্গভবনে বিরোধী জোটের বৈঠক৷ যেখানে ২০২৪ লোকসভায় মোদি-শাহ জুটিকে পরাস্ত করতে বিজেপি বিরোধী দলগুলিকে নিয়ে বৈঠকে বসবেন তৃণমূল নেত্রী৷ প্রসঙ্গত, বাদল অধিবেশন চলায় সব বিরোধী নেতারা দিল্লিতে রয়েছেন৷ সেই সুযোগকেই কাজে লাগাতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ যেখানে বিজেপি বিরোধী দলগুলির শীর্ষনেতাদের সঙ্গে সংসদে আলাদা বৈঠক করার কথা রয়েছে তাঁর৷ আর এই ব্যক্তিগত বৈঠকগুলিকেই ২৮ তারিখের জোট বৈঠকের মঞ্চ তৈরির প্রস্তুতি হিসেবে ব্যবহার করতে চান তৃণমূল সুপ্রিমো৷

    কারণ বিরোধী দলগুলির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে তাঁর এই ব্যক্তিগত সাক্ষাৎ ২৮’র বৈঠকে বিরোধী ঐক্যকে আরও শক্তিশালী করবে বলেই মনে করা হচ্ছে৷ পাশাপাশি মমতার দিল্লি সফরের দ্বিতীয়দিনে আরও একটি সম্ভাবনা রয়েছে৷ তৃণমূল সূত্রে খবর, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লি গিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন৷ সূত্রের খবর, এর জন্য তিনি রাষ্ট্রপতি ভবনে সময় চেয়ে আবেদন করেছেন৷ তবে, সেই সাক্ষাৎকার কবে হবে, তা এখনও ঠিক হয়নি৷ পুরোটাই রাইসিনা হিলসের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে৷ অন্যদিকে, ২৮ জুলাই বিরোধী জোটের গাঁট বাঁধার আগে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করবেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মমতার এটাই প্রথম সাক্ষাৎকার৷ যে সাক্ষাৎকারে রাজ্যের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা হতে পারে দুই প্রশাসনিক প্রধানের মধ্যে৷

    যেখানে করোনা পরিস্থিতি, ভ্যাকসিনেশন এবং ঘূর্ণিঝড় যশের ক্ষতিপূরণ সংক্রান্ত বিষয়গুলি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তুলে ধরবেন৷ অন্যদিকে, রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসা এবং কলকাতা হাইকোর্টে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পেশ করা রিপোর্ট নিয়েও মুখ্যমন্ত্রীর কাছে জবাব চাইতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

  • বাংলাদেশে ২০০ মেট্রিকটন তরল অক্সিজেন পৌঁছে দেবে ভারতীয় রেল

    সংবাদ সংস্থা : ইতিহাস গড়ে প্রথমবারের জন্যে বাংলাদেশে ২০০ মেট্রিকটন তরল অক্সিজেন পৌঁছে দেবে ভারতীয় রেল। দশটি কন্টেনারে এই অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়া হবে বেনাপোল সীমান্তে। এই বিষয়ে ভারতীয় রেলের তরফে এই সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলা হয়েছে, ‘ভারতীয় রেলের অক্সিজেন এক্সপ্রেস বাংলাদেশের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করতে চলেছে। প্রথমবারের জন্য অক্সিজেন অক্সপ্রেস ভারতের কোনও প্রতিবেশী দেশের দিকে ছুটতে চলেছে।

    দক্ষিণ-পূর্ব রেলের চক্রধরপুর ডিভিশনের টাটা স্টেশন থেকে ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়া হবে বাংলাদেশের সীমান্তে।শনিবার সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ অক্সিজেন এক্সপ্রেসে লোডিং করা শুরু হয়।’ভারতীয় রেলের তরফে আরও বলা হয়, ‘২০২১ সালের ২১ এপ্রিল ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে এক্সিজেন পৌঁছে দিতে চালু হয়েছিল অক্সিজেন এক্সপ্রেস। এখনও পর্যন্ত ১৫ রাজ্যে ৩৫ হাজার মেট্রিক টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন পৌঁছে দিয়েছে ভারতীয় রেল। অক্সিজেন এক্সপ্রেসের অধীনে ৪৮০টি ট্রেন ছুটেছে।’সারা দেশে করোনা রোগীদের জন্য অক্সিজেনের ঘাটতির অভিযোগ তুলেছিল অনেকে।

    বিভিন্ন রাজ্যের তরফেও এই অভিযোগ তোলা হয়েছে। তারপরই অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং তরল অক্সিজেন রাজ্যে রাজ্যে পৌঁছে দেওয়ার বৃহত্তর পদক্ষেপ নেয় ভারতীয় রেল। নাম দেওয়া হয়েছে অক্সিজেন এক্সপ্রেস। এবার সেই উদ্যোগ নিয়ে প্রতিবেশী দেশকেও সাহায্য করতে চলেছে ভারত।

  • প্রথম পদক, ভারোত্তোলনে রুপো জিতলেন মীরাবাঈ চানু

    সংবাদ সংস্থা : অলিম্পিকসের দ্বিতীয় দিনেই পদক এল ভারতের ঘরে ৷ ৪৯ কিলো বিভাগে রুপোর পদক জিতে ইতিহাস গড়লেন ভারোত্তোলক মীরাবাঈ চানু ৷ সেই ২০০০ সালে প্রথম মহিলা হিসেবে ভারোত্তোলনে ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিলেন কর্নম মালেশ্বরী ৷ ২০ বছর পর মালেশ্বরীকেও ছাপিয়ে গেলেন মণিপুরী ভারোত্তোলক ৷

    ভারোত্তোলনে দেশের এটি দ্বিতীয় অলিম্পিকস পদক ৷ অলিম্পিকসের দ্বিতীয় দিনেই পদক ঘরে আসায় উচ্ছ্বসিত দেশ ৷৪৯ কেজির স্ন্যাচ বিভাগে ৮৪ কেজি এবং ৮৭ কেজি ভার তোলেন চানু ৷ কিন্তু ৮৯ কেজির ভার তুলতে ব্যর্থ হন ৷ ফলে রুপোর পদক জিতলেন তিনি ৷ টোকিয়ো অলিম্পিকসে দেশের প্রথম অ্যাথলিট হিসেবে পদক জিতলেন মীরাবাঈ চানু ৷ ৯৪ কেজি ভার তুলে সোনার পদক জিতেছেন চিনের হৌ জিয়াহু ৷

    ২০১৮ গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে ৪৮ কেজি বিভাগে সোনা জেতেন চানু ৷ সেই সাফল্যের জন্য রাজীব গান্ধি খেলরত্ন পুরস্কারে ভূষিত হন ৷ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ, কমনওয়েলথের পর চানুর লক্ষ্য ছিল অলিম্পিকস ৷ রিও অলিম্পিকসের ব্যর্থতা কাটিয়ে দেশকে গৌরবান্বিত করলেন তিনি ৷

  • পশ্চিমবঙ্গে চালু হল ‘ই-চালান’ অ্যাপ

    স্টাফ রিপোর্টারঃ পশ্চিমবঙ্গে চালু হল কেন্দ্রীয় সরকারের তৈরি ‘ই-চালান’ অ্যাপ। আপাতত কলকাতা পুলিশ পাইলট প্রোজেক্ট হিসেবে এই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটি চালু করেছে। এই অ্যাপের ব্যবহার প্রধানত পুলিশ প্রশাসনই করে থাকে। তবে সাধারণ মানুষও এই অ্যাপের মাধ্যমে বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা পাবেন। মূলত যারা দুই বা চার চাকার গাড়ি চালান, তাঁদের ঝক্কি কমবে অনেকটাই। এই অ্যাপের মধ্যেমে কেউ ট্রাফিক আইন ভাঙলে সব ধরনের মামলা এই অ্যাপের মাধ্যমেই করতে পারবে ট্রাফিক পুলিশ।

    সিগন্যাল ভাঙলে স্পট ফাইন, নো পার্কিংয়ে গাড়ি রাখা, বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানো, সব কেস করা যাবে এতে। সম্পূর্ণভাবে জিপিএস নির্ভর প্রযুক্তিতে তৈরি হয়েছে এই মোবাইল অ্যাপটি। ফলে যিনি নিয়ম ভাঙবেন, তিনি কোথায় কখন আইন ভঙ্গ করছেন, তা জানিয়ে দেবে এই অ্যাপ। স্থান-কালের তথ্য দিয়েই কেস রেজিস্টার হবে। এই অ্যাপে রয়েছে সারা দেশে সব গাড়ির ডেটাবেস। ‘বাহন’ ও ‘সারথী’ অ্যাপ যুক্ত থাকবে ‘ই-চালান’ অ্যাপের সঙ্গে। ফলে সারা দেশের যে কোনও গাড়ি সংক্রান্ত সব তথ্য মুহুর্তের মধ্যে পেয়ে যাবেন সার্জেন্টরা। কোন গাড়ির বিরুদ্ধে কোথায় কোথায় কতগুলি অভিযোগ আছে, তা নিমেষে পাওয়া যাবে। ট্রাফিক আইন ভাঙলে গাড়িচালক কিংবা গাড়ির কোনও নথি বাজেয়াপ্ত করতে হবে না।

    শুধু নম্বর দিয়ে এই সমস্ত তথ্য পেয়ে যাওয়া যাবে। ‘ডিজি লকার’-এ গাড়ির কাগজ থাকলে ডিজিটাল সিজার করবেন সার্জেন্টরা। পরে ফাইন দিয়ে নথি ছাড়ানো যাবে। ফলে গাড়িচালক কিংবা মালিককে নথি ছাড়ানোর জন্য কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন নেই। খুব শীঘ্রই এই অ্যাপের সঙ্গে কার্ড সোয়াইপ মেশিন ও ডিজিটাল পেমেন্টের ব্যবস্থা যুক্ত করার পরিকল্পনাও রয়েছে সরকারের। সেই ব্যবস্থা চালু হলে ফাইন দেওয়ার জন্য কোনও ঝামেলা পোহাতে হবে না সাধারণ মানুষকে। এছাড়াও শীঘ্রই এই অ্যাপে যুক্ত করা হবে ‘ই-কোর্ট’-এর সুবিধা।

    এর মাধ্যমে যেসব কেস আদালতে গড়িয়েছে তা, মোবাইলেই মেটানো যাবে। গাড়ি মালিককে আদালত পর্যন্ত যেতে হবে না। শুধুমাত্র এই অ্যাপের মাধ্যমে জরিমানার টাকা দিয়ে দিলেই হবে। জরিমানা দিলেই ডিজিটালি জমা করা কাগজ ছেড়ে দেওয়া হবে। নথি ছেড়ে দেওয়া হবে।

  • টিকা নিলেই বিমানযাত্রায় মিলবে আকর্ষণীয় ছাড়

    সংবাদ সংস্থা : করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আশঙ্কায় ত্রস্ত দেশবাসী। এমন পরিস্থিতিতে টিকাকরণের গতি বাড়ানোই একমাত্র লক্ষ্য কেন্দ্রের। কিন্তু অনেকেই এখনও টিকা নিতে ইতস্তত করছেন।সেই মনোভাব দূর করতেই এবার মারণ ভাইরাস মোকাবিলায় টিকা নিতে ভারতীয়দের উৎসাহী করতে দুর্দান্ত অফার ঘোষণা করল বিমান সংস্থা ইন্ডিগো।

    জানানো হল, কোভিড-১৯ টিকার একটি অথবা জোড়া ডোজ নেওয়া হয়ে গেলে বিমানযাত্রায় আকর্ষণীয় ছাড় পাবেন সেই যাত্রী। একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে গুরুগ্রামের বিমান সংস্থাটি জানিয়েছে, বিমানের ন্যূনতম ভাড়ার উপর ১০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হবে। কেন্দ্রের টিকাকরণ অভিযানকে ত্বরান্বিত করতেই এই উদ্যোগ। আজ, ২৩ জুন থেকেই অফারটি চালু হচ্ছে। প্রথম আন্তর্দেশীয় বিমান সংস্থা হিসেবে অতিমারী আবহে এই বিশেষ অফারটি ঘোষণা করল ইন্ডিগো।

  • সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ৯ হাজার কোটি টাকা ফেরাল ইডি

    সংবাদ সংস্থা : আজও দেশে ফেরানো যায়নি তিন পলাতক শিল্পপতি বিজয় মালিয়া, মেহুল চোকসি ও নীরব মোদিকে। তিনজনের কারণে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলির ক্ষতির পরিমাণ ২২ হাজার ৫০০ কোটি টাকারও বেশি।বুধবার তিনজনের মোট ৯ হাজার ৩৭১ কোটি টাকা রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যঙ্কে পাঠাল এনফর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

    সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ইডি তাঁদের টাকা ব্যাঙ্কগুলিকে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ত্রয়ীর মোট ব্যাঙ্ক প্রতারণার অঙ্ক ২২ হাজার ৫৮৫ কোটিরও বেশি। এ যাবৎ ইডি ১৮ হাজার ১৭০ কোটির সামান্য বেশি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে পেরেছে। যা মোট প্রতারণার ৮০ শতাংশ।ইতিমধ্যেই ওই তিন শিল্পপতির মোট ১৮ হাজার ১৭০ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে ইডি। যা ব্যাংকগুলির মোট ক্ষতির প্রায় ৮০ শতাংশ। বুধবার ইডির তরফে জানানো হয়েছে কেবল সম্পত্তি বাজেয়াপ্তই নয়, সেই সঙ্গে শেয়ারের গুরুত্বপূর্ণ ৯ হাজার ৩৭১ কোটি ১৭ লক্ষ টাকা এবার ফিরিয়ে দেওয়া হল রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক ও কেন্দ্রীয় সরকারকে।

    তিন পলাতক শিল্পপতির কারণে ব্যাংকগুলিকে মোট ২২ হাজার ৫৮৫ কোটি ৮৩ লক্ষ টাকার ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছিল। তিনজনকেই দেশে ফেরানোর সব রকম চেষ্টা হলেও এখনও সাফল্য আসেনি। তবে এরই মধ্যে ৯ হাজার ৩৭১ কোটি টাকা ফেরত পাওয়ার ফলে ব্যাংকগুলি কিছুটা হলেও স্বস্তি পাবে।

  • পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হল মিলখা সিংকে

    সংবাদ সংস্থা : শুক্রবার রাতে প্রয়াত হন মিলখা সিংহ। শনিবার বিকেলে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হল তাঁকে। তাঁর পরিবারের লোকজন ছাড়াও ছিলেন কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী কিরেন রিজিজু। প্রত্যেকেই শেষকৃত্যের সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন।
    প্রায় ৩০ দিন ধরে কোভিডের সঙ্গে লড়াই করার পর শুক্রবার রাতে প্রয়াত হন মিলখা, ভারতীয় ক্রীড়ামহলে যিনি ‘উড়ন্ত শিখ’ নামেই পরিচিত ছিলেন।

    ভারতের অন্যতম সেরা ক্রীড়াবিদের মৃত্যুর খবরে শোকের ছায়া নেমে আসে ভারতীয় ক্রীড়ামহলে। তাই শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে কোনও খুঁত রাখতে চাননি কেউই। ছেলে জীব মিলখাই শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন। অনুষ্ঠানের জন্য প্রচুর মাত্রায় পুলিশ নিয়োগ করা হয়েছিল। মিলখাকে গান স্যালুট দেওয়া হয়।অনুষ্ঠানে রিজিজু ছাড়াও হাজির ছিলেন পঞ্জাবের রাজ্যপাল ভি পি সিংহ বাদনোর, পঞ্জাবের অর্থমন্ত্রী মনপ্রীত সিংহ বাদল, হরিয়ানা ক্রীড়ামন্ত্রী সন্দীপ সিংহ।

    যে হাসপাতালে মিলখা ছিলেন, সেই পিজিআইএমইআর-এর ডিরেক্টর ডাক্তার জগৎ রামও হাজির ছিলেন। মিলখার প্রয়াণে এক দিন শোকদিবস পালন করা হবে। ওই দিন ছুটিও ঘোষণা করা হয়েছে।

  • পরিবারের ৪ জনকে জ্যান্ত সমাধিস্থ ছেলের, স্বীকার করল নিজেই

    স্টাফ রিপোর্টারঃ মা, বাবা, ঠাকুমা ও বোন৷ পরিবারের চারজনকে খুন করে বাড়িতেই পুঁতে দিয়েছিল বাড়ির ছোট ছেলে৷ তারপর সেই বাড়িতেই বহাল তবিয়তে বাস করছিল আসিফ মেহবুব নামে ওই অভিযুক্ত। এক বা দুদিন নয়, এভাবে চারটা মাস কেটে যায়৷ কোনওরকমে প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন দাদা৷

    কিন্তু ভয়ে এতদিন মুখ খুলতে পারেননি৷ অবশেষে সাহস জুগিয়ে স্থানীয় থানায় গিয়ে গোটা ঘটনা খুলে বলেন৷ শুনে অবাক পুলিশ৷ প্রথমে বিশ্বাসই করতে চায়নি তারা৷ অবশেষে শুক্রবার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে খুনি ভাইকে ধরিয়ে দিলেন দাদা৷ গায়ে কাঁটা দেওয়া এই ঘটনা মালদার কালিয়াচকের৷ জেরায় খুনের কথা স্বীকার করেছে আসিফ৷ কালিয়াচক ৩ নম্বর ব্লকের বীরনগর ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের পুরানো ১৬ মাইল এলাকার বাসিন্দা জাওয়াদ আলি (৫৩) ৷ যিনি ছিলেন অভিযুক্তের বাবা। সেই জাওয়াদের পরিবারে ছিল মা আলেকজান বিবি (৭২), স্ত্রী ইরা বিবি (৩৮), দুই ছেলে ও এক মেয়ে৷ বড় ছেলে রাহুল শেখ সেভাবে কাজকর্ম করেন না৷ পারিবারিক জমিজায়গার দেখাশোনা করেন৷

    বাড়ির ছোট ছেলে আসিফ মেহবুব ওরফে আন্নান স্থানীয় একটি বেসরকারি স্কুলে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র৷ মেয়ে আরিফা খাতুন (১৩) গ্রামেরই একটি স্কুলের ছাত্রী৷ গত ১৮ ফেব্রুয়ারি আন্নান বাড়িতেই জলের মধ্যে শ্বাসরোধ করে মা-বাবা, ঠাকুমা ও বোনকে খুন করে খুন করে৷ এরপর বাড়িতেই দেহগুলি পুঁতে দেয়৷ ঠিক কীভাবে পরিবারের চারজনকে খুন করল, তা নিজে মুখেই স্বীকার করেছে অভিযুক্ত আসিফ মহম্মদ। এ বিষয়ে মালদহের পুলিশ সুপার জানান, গত ২৮ ফেব্রুয়ারি দুপুর সাড়ে তিনটা নাগাদ ঠান্ডা পানীয়র সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে বাবা, মা, দাদা, বোন এবং দিদাকে খাওয়ায় আসিফ। অচৈতন্য হয়ে পড়েন প্রত্যেকে। তারপরই তাঁদের মুখে সেলোটেপ লাগিয়ে দেয় সে। বেঁধে দেওয়া হয় হাত-পা। এদিকে, হত্যাকাণ্ডের আগে থেকেই গুদামঘরে একটি চৌবাচ্চা তৈরি করেছিল আসিফ। অল্প অল্প করে তাতে জলও জমায় সে।

    গুদামঘরে যাতায়াতের জন্য তৈরি করে একটি সুড়ঙ্গ। ঘটনার দিন সুড়ঙ্গের মাধ্যমে গুদামঘরে একে একে পাঁচজনকে নিয়ে যাওয়া হয়। চৌবাচ্চায় ফেলে দেওয়া হয় প্রত্যেককে। তবে আসিফের দাদা আরিফ ভাইয়ের সঙ্গে কোনওক্রমে মারামারি করে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে কলকাতায় চলে যান। এদিকে, আসিফ ওই চৌবাচ্চার উপরে সিমেন্ট, বালি চাপা দিয়ে দেয়। বাড়িতে স্থানীয়দের প্রবেশের ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা জারি করে সে।দু-একদিন আগে মালদহে ফিরে আসেন অভিযুক্তের দাদা। পুলিশকে গোটা ঘটনা জানায়। এরপর ওই বাড়িটিতে হানা দেয় পুলিশ। অবশেষে ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে দেহ খুঁড়ে বের করা হয়। তারপরই গোটা ঘটনাটি সামনে আসে। তবে পুলিশকে ভাইয়ের ‘কীর্তি’ জানাতে কেন চার মাস সময় নিলেন আরিফ, সেই প্রশ্নও ভাবাচ্ছে তদন্তকারীদের। অভিযুক্ত আসিফের ঘর থেকে বেশ কয়েকটি মোবাইল বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। ল্যাপটপও মিলেছে।

    এছাড়াও বাড়ি থেকে কয়েক লক্ষ টাকা উদ্ধার হয়েছে। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, সম্পত্তিগত বিবাদের জেরে খুন করা হয়েছে প্রত্যেককে। আসিফকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পরই সমস্ত তথ্য সামনে আসবে বলেই মনে করছে পুলিশ।

Back to top button