13 Jun 2021, 2:07 AM (GMT)

Coronavirus Stats

29,439,989 Total Cases
370,407 Death Cases
28,043,446 Recovered Cases

আবহাওয়া

  • কেরলে ৩ জুন ঢুকছে বর্ষা, বঙ্গে বর্ষা আসতে লাগবে কয়েকটা দিন

    স্টাফ রিপোর্টার : সকাল থেকেই আকাশের মুখভার। সপ্তাহের শুরুতেই প্রাক বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে বাংলার বেশকিছু অংশে। যার জেরে তপ্ত দুপুরের গরম থেকে আপাতত মিলেছে স্বস্তি। তবে এই রোদ-বৃষ্টির লুকোচুরি খেলা এখনও বেশকিছু দিন চলবে বঙ্গে। যারফলে বাতাসে অতিরিক্ত জলীয়বাষ্প থাকায় বাড়বে অস্বস্তি।

    মৌসম ভবন সূত্রে খবর, ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু । আগামী ৩ জুন কেরলে ঢুকছে বর্ষা। ফলে এখন রাজ্যে প্রাক বর্ষা চললেও কেরলে প্রবেশের পর দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু কতটা শক্তিশালী থাকে তার উপর নির্ভর করছে এ রাজ্যে বর্ষার পরিমাণ এবং প্রবেশের দিনক্ষণ।

    তবে মৌসম ভবন সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, মূলত দেশের কেরল উপকূলে প্রথমে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু প্রবেশ করে। তারপর এই দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু এই রাজ্যে প্রবেশ করতে অন্তত সাত থেকে দশদিন সময় লাগে।

    ফলে রাজ্যে এখনই প্রাক বর্ষার বৃষ্টি চললেও বঙ্গে পুরোপুরি বর্ষা ঢুকতে এখনও দশ থেকে বারো দিনের অপেক্ষা করতে হবে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস।

  • ভয়াবহ আকার ধারণ করে গুজরাট উপকূলের পথে ‘সাইক্লোন’ তাওকতে

    স্টাফ রিপোর্টারঃ ক্রমশ শক্তিশালী হচ্ছে ঘূর্ণিঝড় তাওকতে। মৌসম ভবনের তরফে জানান হয়েছে সোমবার সন্ধ্যা নাগাদ এই ঝড় গুজরাট উপকূলে পৌঁছে যাবে। এদিন ভোরে প্রায় ১১৮ থেকে ১৬৬ কিলোমিটার বেগে গুজরাটের ভাওয়ানগর জেলার পোরবন্দরে আছড়ে পড়ার সম্ভবনা রয়েছে।

    গুজরাট ছাড়াও মহারাষ্ট্র, কেরল কর্ণাটকেও এর তীব্র প্রভাব পড়ার সম্ভবনা রয়েছে। এই সমস্ত এলাকাগুলিতে প্রশাসনের তরফ থেকে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে। সমুদ্রে থাকা মৎসজীবীরাও সংবাদ পেয়ে ফায়ার এসেছে। রবিবার সন্ধ্যে পর্যন্ত গোয়া উপকূলের খুব কাছেই পৌঁছে গিয়েছিল এই ঝড়। তাই বিপর্যয় মোকাবিলায় প্রশাসনের তরফ থেকে সমস্ত উদ্ধারকারী বাহিনী তৈরী রাখা হয়। গোয়ার সমুদ্র সৈকত থেকেও পর্যটকদের ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

    এদিন কর্ণাটক, কেরল, মহারাষ্ট্রের উপকূলবর্তী অঞ্চলেও ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে। মৌসম ভবনের সূত্রানুযায়ী, “প্রথম ১২ ঘন্টায় গভীর নিম্মচাপ এবং পরবর্তী ১২ ঘন্টায় তা সাইক্লোনে পরিণত হবে। এরপর আরও শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ শুক্রবার পর্যন্ত এর গতিমুখ উত্তরপূর্বে অবস্থান করছে। ১৮ মে গুজরাট উপকূলে আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।” একদিকে করোনার দাপট অপরদিকে সাইক্লোন। এমন পরিস্থিতিতে সমস্ত দিক খতিয়ে দেখতে রবিবার জরুরিকালীন বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

    ঝড়ের প্রভাবে থাকা সমস্ত এলাকা গুলি থেকে করোনা রোগীদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সোমবার মহারাষ্ট্রের বেশকিছু অঞ্চলে করোনা টিকাকরণ কর্মসূচীও বন্ধ রাখা হয়েছে।

  • নির্ধারিত সময়ের একদিন আগে দেশে ঢুকবে বর্ষা, পূর্বাভাস মৌসম ভবনের

    সংবাদ সংস্থা : নির্ধারিত সময়ের একদিন আগেই বর্ষা ঢুকছে দেশে। সাধারণত ১ জুন কেরালায় বর্ষা ঢোকার কথা। কিন্তু তার একদিন আগেই ৩১ মে কেরালায় বর্ষা ঢুকবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।আবহাওয়া দফতরের রিপোর্টে এমন কথাই বলা হয়েছে।আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, চলতি বছরে দক্ষিণ–পশ্চিম মৌসুমি বায়ু আগামী ৩১ মে কেরালায় প্রবেশ করবে।

    তা খুব বেশি হলে চারদিন আগে-পরে হতে পারে।এর আগে ২০১৮ সালে এই একই ধরনের ঘটনা ঘটেছিল। ২০১৮ সালে ২৯ মে কেরালায় দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু প্রবেশ করেছিল। আবহাওয়াবিদদের মতে, কেরালায় দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু প্রবেশ করার পর জুলাইয়ের মাঝামাঝি নাগাদ সারা দেশ জুড়ে তা ছড়িয়ে পড়ার কথা।

    এর আগে অবশ্য বেসরকারি সংস্থার তরফেও আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, এবারে বর্ষা নির্ধারিত সময়ের আগেই আসতে পারে। এবার সরকারি তরফেও এই একই কথাই ঘোষণা করা হল।

  • ধেয়ে আসছে বছরের প্রথম ঘূর্ণিঝড় ‘তাওকতে’, জারি লাল সতর্কতা

    বিশ্ব সমাচারের ওয়েবডেস্কঃ বছরেরর প্রথম ঘুর্ণিঝড় ধেয়ে আসছে আবর সাগর এবং লাক্ষাদ্বীপ এলাকা থেকে।আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, শনিবার সকালের মধ্যে নিম্নচাপ গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে। সাইক্লোনটির নাম রাখা হয়েছে তাওকতে। হাওয়া অফিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ পূর্ব আরব সাগর ও লাক্ষাদ্বীপ সংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। ১৫ তারিখের মধ্যে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে।

    ‘ শক্তি বাড়িয়ে ঘূর্ণিঝড় উত্তর উত্তরপশ্চিম দিকে এগিয়ে গুজরাট ও সংলগ্ন পাক উপকূলের দিকে এগোবে। এর জেরে ১৭ তারিখ পর্যন্ত লাক্ষাদ্বীপ, কেরল, তামিলনাড়ু, কর্নাটক, দক্ষিণ কঙ্কন ও গোয়ায় ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা হয়েছে।শুক্রবার থেকেই লাক্ষাদ্বীপ-সহ কিছু এলাকায় ইতিমধ্যেই হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। তওকতের কারণে শুক্রবারই লাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে কেরলের পাঁচ জেলায়। রবিবার বা সোমবার ভারতের দক্ষিণ উপকূলে তওকতের আছড়ে পড়ার আশংকা করা হচ্ছে। কেরলে শনিবার থেকে ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

    আর এর জেরে আগামী ৫ থেকে ৬ দিন উপকূলবর্তী এই রাজ্যগুলিতে ঝড়ো হাওয়া বইবে। জায়গা বিশেষে এই ঝড়ের গতি ৪০ থেকে ৮০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা পর্যন্ত পৌঁছতে পারে। আবহবিদরা জানাচ্ছেন, আরব সাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপটির প্রভাবে সমুদ্র উত্তাল হবে, সমুদ্রের জলস্তর বাড়বে এবং জলোচ্ছ্বাস হবে বলেও সতর্কবার্তা জারি করেছে মৌসম ভবন। লাক্ষাদ্বীপ কেরল, কর্নাটক, তামিলনাড়ু উপকূলের পাশাপাশি ১৫ মে গোয়া এবং মহারাষ্ট্র উপকূলেও সমুদ্র উত্তাল হবে বলে পূর্বাভাস আবহবিদদের। লাক্ষাদ্বীপে সমুদ্রের ঢেউ সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১ কিলোমিটার পর্যন্ত উপরে উঠতে পারে বলেও সতর্কতা জারি করেছে মৌসম ভবন।

    পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে ইতিমধ্যেই জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ৫৩টি দলকে তৈরি রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ২৪টি দলকে ইতিমধ্যেই এলাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকি দলগুলিকে স্ট্যান্ডবাইতে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। রাজ্য প্রশাসনগুলিকে সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

  • কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গে ঝড়ের তাণ্ডব, সঙ্গে তুমুল বৃষ্টি, দুই জেলায় বাজ পড়ে মৃত ৩

    স্টাফ রিপোর্টার : কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের একাঝিক জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি। সঙ্গে বইছে ঝোড়ো হাওয়াও। তুমুল বৃষ্টি হচ্ছে কলকাতা ও শহরতলিতে। বৃষ্টি হচ্ছে হাওড়া, হুগলি, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মালদহ, মুর্শিদাবাদ, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমানে।

    সকাল থেকেই আকাশের মুখ ছিল ভার। দুপুরেই পরই আকাশ কালো মেঘে ঢাকে। মঙ্গলবার দুপুরের মধ্যেই কলকাতায় ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর।এদিকে মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ থানার পুঠিমারী মাঠে বাজ পড়ে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। মৃতের নাম নাজির হোসেন (৩৫)। মৃতের বাড়ি যান সামশেরগঞ্জের বিডিও কৃষ্ণচন্দ্র মুন্ডা এবং বিদায়ী বিধায়ক আমিরুল ইসলাম।

    এছাড়াও পূর্ব বর্ধমান জেলায় বাজ পড়ে মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। মৃতদের নাম সঞ্জয় প্রামাণিক ও শরিফ মুন্সি।বৃষ্টির জেরে স্বস্তি নিশ্বাস ফেলেছেন সাধারণ মানুষ। ফলনে ব্যাপক ক্ষতি হবে বলে দাবি চাষিদের। এখন বোরো ধান কাটার কাজ চলছে জোর কদমে। বৃষ্টির কারণে ধানকাটা মেশিন নামতে পারবে জমিতে।

    তাতে ধান ঘরে তুলতে আরও সময় লাগবে। অন্যদিকে যে সমস্ত জমিতে ধান কেটে রাখা ছিল সেই ধান ভিজে গিয়েছে। ফলে মাথায় হাত চাষিদের।

  • সপ্তাহ জুড়ে বৃষ্টির পূর্বাভাস, ঘূর্ণাবর্তের জেরে ভাসবে উত্তর ও পূর্ব ভারত

    স্টাফ রিপোর্টার : দক্ষিণ, উত্তর এবং পূর্ব ভারত জুড়ে সপ্তাহ ভর বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল আবহাওয়া দফতর। উত্তরপ্রদেশের উপর তৈরি হওয়া এক ঘূর্ণাবর্তের জেরে এই বর্ষণ হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এছাড়া উত্তর-পূর্ব ভারতেও এই সময়ে ভারী বৃষ্টি হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। পরবর্তী পাঁচদিন বাংলা ছাড়াও সিকিমে বৃষ্টিপাত হবে।

    এদিকে ৫ মে থেকে ৮ মে বৃষ্টি হতে পারে অরুণাচলপ্রদেশে, ৪ মে থেকে শুরু হয়ে ৮ মে পর্যন্ত বৃষ্টি হতে পারে অসম ও মেঘালয়ে, ৫, ৬ এবং ৮ মে বৃষ্টি হতে পারে নাগাল্যান্ড, মিজোরাম এবং ত্রিপুরায়।এছাড়া দক্ষিণে কেরল, মাহে, লক্ষ্মদ্বীপ সহ উপকূলীয় কর্ণাটকে বৃষ্টি হতে পারে আগামী বেশ কয়েকদিন।

    এছাড়া উত্তর-পশ্চিম ভারতেও আগামী কয়েকদিনে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত হতে পারে। উত্তরাখণ্ডেও প্রবল বৃষ্টি হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিল আবহাওয়া দফতর।

  • গরমে স্বস্তি, রাজ্যে বৃষ্টি, আজ শহরে রয়েছে কালবৈশাখীর পূর্বাভাস

    বিশ্ব সমাচারের ওয়েবডেস্কঃ ভোর থেকেই মেঘের গুরু গুরু ডাক। কিছু পরেই থেকে থেকে বাজের ঝলকানি আর বৃষ্টি। এভাবেই মঙ্গলবারের সকালটা শুরু হল শহর কলকাতা ও বিভিন্ন জেলার।হাওয়া অফিস বলছে, আগামী ৬ মে পর্যন্ত আবহাওয়া এরকমই থাকবে।

    দক্ষিণবঙ্গের কিছু এলাকায় কালবৈশাখীর সম্ভাবনাও রয়েছে। ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে নদিয়া, মুর্শিদাবাদ এবং উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে। কলকাতাতেও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি ও ঝড়ের সময় ঘর থেকে না বেরোনোর পরামর্শ আলিপুর আবহাওয়া দফতরের। আবহাওয়া দফতর আরও জানিয়েছে, ঝড়-বৃষ্টির প্রভাবে তাপমাত্রা কমতে পারে রাজ্যে।

    বিধানসভা নির্বাচনের দিনগুলিতে যেভাবে কাঠফাটা রোদ ও আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিতে ভুগতে হয়েছে মানুষকে তার থেকে রেহাই মিলতে পারে। আবহাওয়া দপ্তর জানাচ্ছে সোমবার থেকেই তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নিচে নামতে শুরু করেছে। বিশেষ করে দিনের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের নিচে থাকায় স্বস্তির আবহাওয়া মিলবে রাজ্যে।

  • রবিবার থেকে রাজ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা, চলতে পারে ৬ মে পর্যন্ত

    স্টাফ রিপোর্টার : প্রবল গরমে হাঁসফাঁস অবস্থা থেকে স্বস্তির বার্তা দিল আবহাওয়া দফতর। আগামী রবিবার, ২ মে বিধানসভার ভোটগণনার দিন থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে।

    সেই সঙ্গে বইবে ঝোড়ো হাওয়াও।শুক্রবার আলিপুর আবহাওয়া দফতর আরও জানিয়েছে, ওই ৫ দিনের মধ্যে আগামী সপ্তাহের সোমবার থেকে বুধবার কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ এবং উত্তর ২৪ পরগনায় ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

    বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টিপাতের ফলে তাপমাত্রার পারদও নামতে পারে বলে জানিয়েছেন হাওয়া অফিসের আধিকারিকেরা।আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, মধ্যপ্রদেশের উপর ঘূর্ণিঝড়ের উপস্থিতিতে এ রাজ্যের মধ্যভাগে তার প্রভাব পড়বে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের দিকে ঘূর্ণিঝড়ের গতিমুখ থাকায় ২ মে থেকে ৬ মে এ রাজ্যে আর্দ্রতা বাড়বে।

  • তীব্র দাবদাহের মধ্যে আশার আলো, দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

    স্টাফ রিপোর্টার : বৈশাখে লাগাতার দাবদাহের মধ্যেও দেখা নেই কালবৈশাখির। বিশেষ করে কলকাতা ও লাগোয়া জেলাগুলিতে চলতি মরশুমে বৃষ্টির খরা চলছে। এরই মধ্যে দেখা দিয়েছে আশার আলো। পূর্বাভাস বলছে, বুধবার ভোরের দিকে কলকাতা ও লাগোয়া জেলাগুলিতে হতে পারে ঝড়বৃষ্টি।চলতি বছরে এখনো পর্যন্ত ২টি দুর্বল কালবৈশাখি দেখেছে কলকাতা।

    তার মধ্যে ১টি ছিল অত্যন্ত দুর্বল। তাতে বৃষ্টিপাতের মাত্রাও ছিল নগন্য। বৈশাখের অর্ধেক পার হতে চললেও ঝড়-বৃষ্টির লক্ষণ নেই। যার ফলে অস্বস্তি ক্রমশ বাড়ছে। পূর্বাভাস অনুসারে, গত কয়েকদিনে বেড়েছে দখিনা বাতাসের গতি।

    যার ফলে দক্ষিণবঙ্গে ঢুকছে প্রচুর জলীয় বাস্প। যার ফলে বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। যার জেরে বুধবার ভোরে দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় বিক্ষিপ্ত ঝড়বৃষ্টি হতে পারে।

  • বাড়বে তাপমাত্রা, আগামী সপ্তাহের শুরুতেই বৃষ্টির সম্ভাবনা

    স্টাফ রিপোর্টার: গরমে নাজেহাল সাধারণ মানুষ। দেখা নেই বৃষ্টিপাতের। এই অস্বস্তিকর পরিস্থিতির থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বৃষ্টি চাইছেন সাধারণ মানুষ। কিন্তু সেভাবে আশার কোনও খবর শোনাতে পারল না আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

    বরং বাড়বে শহর কলকাতার তাপমাত্রা, জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা। আবহাওয়াবিদ সুজিব কর বলেন, ‘প্রচণ্ড হারে বাড়তে শুরু করবে তাপমাত্রা। এমনকী ৪০ ডিগ্রিও ছুঁতে পারে তাপমাত্রার পারদ। প্রায় সাত থেকে আটদিন প্রবল গরম থাকবে।

    ‘ আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, কলকাতার আবহাওয়া মূলত শুষ্ক থাকবে। অস্বস্তি বাড়াবে আপেক্ষিক আর্দ্রতা।চলতি সপ্তাহে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকলেও আগামী সপ্তাহের শুরুতেই রাজ্যের স্বস্তি ফেরাবে ঝড়বৃষ্টি।

    আগামী মঙ্গলবার রাজ্যের মুর্শিদাবাদ, পুরুলিয়া, বীরভূম, বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম এবং পশ্চিম বর্ধমান এই জেলাগুলিতে সম্ভাবনা রয়েছে বৃষ্টিপাতের।

Back to top button