23 Jun 2021, 2:35 AM (GMT)

Coronavirus Stats

30,028,709 Total Cases
390,691 Death Cases
28,994,855 Recovered Cases

দক্ষিণ ২4 পরগণা

  • কোভিডের তৃতীয় ঢেউয়ের মোকাবিলার দফায় দফায় বৈঠক কুলপি ব্লক প্রশাসনের

    সানওয়ার হোসেন, কুলপি: মঙ্গলবার কোভিডের তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলার বিশেষ বৈঠক করলেন কুলপি ব্লক প্রশাসন। এদিন ক্লাব, এনজিও, ইমাম-মোয়াজ্জেম ও বাজার কমিটিকে নিয়ে বিশেষ আলোচনা হয় দফায় দফায়।

    বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কুলপি ব্লক অধিকারী দেবর্ষি মুখোপাধ্যায়, ঢোলাহাট ও কুলপি পুলিশ প্রশাসন, বিধায়ক যোগরঞ্জন হালদার, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও সহকারী সভাপতি প্রমুখ। সকলকে কোভিড পরিস্থিতি কঠোর ভাবে মেনে চলার আবেদন জানানো হয়। প্রয়োজনে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা নেওয়ার পরামর্শ দিলেন ব্লক আধিকারিক।

  • বৃষ্টিতে গোচরণ থেকে মথুরাপুর পর্যন্ত কুলপি রোড মরণফাঁদ, ঘটছে দুর্ঘটনা, নির্বিকার প্রশাসন

    প্রদীপকুমার সিংহ, বারুইপুর: একদিনের বৃষ্টিতে রাস্তা আর রাস্তা নেই। পিচের আস্তরণ উঠে বেরিয়ে পড়েছে রাস্তার কঙ্কাল। বড় বড় খানাখন্দে ভর্তি। জল জমে হয়েছে মরণফাঁদ। নিত্য ঘটছে দুর্ঘটনা। বর্ষার শুরুতেই এমনই চিত্র গোচরণ থেকে মথুরাপুর পর্যন্ত কুলপি রোডের। অভিযোগ, রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু হলেও মাঝপথে বন্ধ হয়ে যায়। আর সব জেনে-দেখেও প্রশাসন নির্বিকার। কবে রাস্তা সংস্কার হবে, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন সাধারণ মানুষ।

    এই নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত পূর্ত দপ্তরের অতিরিক্ত বাস্তুকাররা। যদিও জয়নগরের বিধায়ক বিশ্বনাথ দাস বললেন, রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু হয়েছিল। ভোটের জন্য বন্ধ হয়ে যায়। এখন বর্ষা এসে যাওয়ায় কাজ শুরু করতে সমস্যা হচ্ছে। কুলপি রোডের বাংলার মোড় পেরিয়ে দক্ষিণ বারাসতে ঢোকার মুখেই নজর পড়বে বেহাল রাস্তা। এরপর বহুড়ু, জয়নগর, দক্ষিণ বিষ্ণুপুর যত এগোনো যাবে, কঙ্কালসার দশা প্রকট হবে। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কয়েকশো গাড়ি চলাচল করে। খোদ বিধায়কের বাড়ি দক্ষিণ বারাসতে বৃষ্টি হলেই রাস্তায় বড় বড় গর্তে জল জমে ঢেউ খেলে। একে এবড়ো-খেবড়ো রাস্তা, তার উপর যত্রতত্র পড়ে রয়েছে স্টোনচিপ। এর জেরে সাধারণ মানুষজন ক্ষুব্ধ। ভুক্তভোগী বাসিন্দাদের অভিযোগ, রাস্তা দিয়ে কোনও গাড়ি করে গেলে কান্না পায়। গাড়িতে উঠে ইষ্টনাম জপ করতে হয়।

    রাস্তা এতই বেহাল যে জল জমে থাকলে খানা-খন্দ বোঝা যায় না। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের আন্দোলনের চাপে গোচরণ থেকে দক্ষিণ বারাসত পর্যন্ত কিছু এলাকায় নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে কাজ শুরু হয়েছিল। এরপর ভোট কড়া নাড়তেই তা বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু ভোট মিটতেই নেতাদের রাস্তা মেরামতের প্রতিশ্রুতি উধাও। বাসিন্দাদের আশঙ্কা, ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হলে আরও শোচনীয় অবস্থা হবে। অনেকেই বললেন, এই রাস্তা দিয়েই প্রতিদিন বিধায়ক থেকে শুরু প্রশাসনের লোকজন চলাফেরা করেন। তাঁরা দেখে-জেনেও নীরব রয়েছেন।

    রাস্তার অবস্থা নিয়ে গাড়িচালকরাও ক্ষুব্ধ। তাঁরা বলেন, গর্তে পড়ে প্রতিদিন গাড়ি উল্টে যাচ্ছে। এখন গাড়ি চালানো বিপজ্জনক।মানুষ নরক যন্ত্রণায় ভোগে। প্রতি বছর রাস্তা সারাই হয়। কিন্তু বর্ষার আসার আগে দু’একদিনের বৃষ্টিতে রাস্তার হাল খুব খারাপ হয়।

  • পাথরপ্রতিমার কংগ্রেস নেতা সৌমেন্দ্রনাথ দাস প্রয়াত

    রবীন্দ্রনাথ সামন্ত, পাথরপ্রতিমা: দীর্ঘ রোগভোগের পর মঙ্গলবার পাথরপ্রতিমা হাসপাতলে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন পাথরপ্রতিমা ব্লক কংগ্রেস কমিটির সহ-সভাপতি এবং দুর্বাচটি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন উপপ্রধান সৌমেন্দ্রনাথ দাস। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। স্ত্রী আশলতা দাস এবং দুই ছেলে বর্তমান।

    তাঁর মৃত্যুতে উপস্থিত ছিলেন সংযুক্ত মোর্চার পক্ষে সিপিএম নেতা অজয়কুমার জানা, পাথরপ্রতিমা ব্লক কংগ্রেসের সভাপতি শুভ্রাংশুশেখর নায়েক সহ কংগ্রেসের অন্যান্য নেতৃত্ব। দলীয় সূত্রে খবর, তিনি দীর্ঘদিন ক্যান্সার রোগে ভুগছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে এলাকায় গভীর শোকের ছায়া নেমে আসে। ছাত্রজীবন থেকে তিনি একজন কংগ্রেস ঘরানার লোক ছিলেন। তিনি দুর্বাচটি গ্রাম পঞ্চায়েতে ২০ বছর ধরে পঞ্চায়েত সদস্য ছিলেন। উপপ্রধানের দায়িত্বও সামলেছেন। ১৯৮৮ সালে প্রথম পঞ্চায়েত সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৮ সাল এবং ২০০৩ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত উপপ্রধান হয়েছিলেন।

    মৃত্যুর আগে পর্যন্ত তিনি ছিলেন পাথরপ্রতিমা ব্লক কংগ্রেস কমিটির সহ-সভাপতি। দুর্বাচটি গ্রাম পঞ্চায়েতে তাঁর সমাজসচেতন মূলক কর্মকাণ্ড ছিল প্রতিটি নাগরিকের কাছে মনে রাখার মতো। প্রদেশ এবং জেলা কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বীরেশচন্দ্র মন্ডল জানান, সৌমেন্দ্রনাথ দাসের মৃত্যুতে ব্লক কংগ্রেস এক দক্ষ নেতাকে হারাল।

  • পাথরপ্রতিমায় ১৫০০ পরিবারকে ত্রাণসামগ্রী

    বিশ্ব সমাচার, পাথরপ্রতিমা: মঙ্গলবার পাথরপ্রতিমায় প্রায় ১৫০০ বন্যাদুর্গত পরিবারকে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে বলে জানান এলাকার বিধায়ক সমীরকুমার জানা। তিনি বলেন, হেরম্ব গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের কুয়েমুড়িতে ৫০০, বনশ্যামনগরে ৫০০ এবং রামগঙ্গাতে ৫০০ দুর্গত পরিবারের মধ্যে চাল, ডাল, আলু, সোয়াবিন, মাস্ক, স্যানিটাইজার প্রভৃতি এদিন বিলি করা হয়েছে।

    হুগলির জঙ্গিপাড়ার বিধায়ক স্নেহাশিস চক্রবর্তী এইসব ত্রাণসামগ্রী দুর্গতদের হাতে তুলে দিয়েছেন। রামগঙ্গায় একটি মেডিক্যাল ক্যাম্প বসেছিল। প্রায় ২০০ দুর্গতকে এদিন বিনা পয়সায় চিকিৎসা করা হয়েছে এবং ওষুধ দেওয়া হয়েছে বলে জানান সমীরবাবু।

  • কাকদ্বীপে জন্মদিনে রক্তদান শিবির, বিনিময়ে চারাগাছ

    বিশ্বসমাচার, কাকদ্বীপ: করোনা অতিমারিতে রক্তের ঘাটতি মেটাতে নিজের জন্মদিনে এগিয়ে এলেন কাকদ্বীপ ব্লকের ঋষি বঙ্কিম গ্রাম পঞ্চায়েতের স্থায়ী বাসিন্দা সন্তু পাল। মাস্টার্ড ডিগ্রি শেষ করে বিএড কলেজে পাঠরত। মঙ্গলবার তাঁর জন্মদিনে নিজ বাড়িতে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করেন।

    এদিন যাঁরা রক্ত দিয়েছেন, তাঁদের হাতে সন্তু চারাগাছ তুলে দেন। সাম্প্রতিক প্লাবনে অনেক গাছ মরে গিয়েছে। এজন্য চারাগাছ দেওয়া হয়েছে। এদিন প্রায় ৫০ জন আত্মীয় ও প্রতিবেশী রক্ত দান করেন।

  • রেশন কার্ডে নামে ভুুল, আধার সংযোগ না হওয়ায় বিক্ষোভ নামখানায়

    রবীন্দ্রনাথ মণ্ডল ও অমিত মণ্ডল, নামখানা: নারায়ণপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত একাধিক পরিবারের খাদ্য সুরক্ষা কার্ডের পরিবার প্রধানের নাম ভুল রয়েছে। যে কারণে ওই সকল সাধারণ মানুষ নিজেদের খাদ্য সুরক্ষা কার্ডগুলির সঙ্গে আধার লিঙ্ক করাতে পারছেন না।

    খাদ্য সুরক্ষা কার্ডের ভুল সংশোধনের জন্য দুয়ারে সরকার শিবিরে আবেদন জানিয়েছিলেন। তাতেও কোনও সুরাহা হয়নি বলে অভিযোগ। মঙ্গলবার দুপুরে নামখানার নারায়ণপুর অঞ্চলের সেই সকল কার্ড হোল্ডাররা নামখানা ব্লক খাদ্য ও সরবরাহ দপ্তরের সামনে এসে বিক্ষোভ দেখান‌। তাঁদের অভিযোগ, একদিকে রেশন ডিলার বলছেন, কার্ডের সঙ্গে আধার লিঙ্ক না হলে আগামী দিনে রেশন দেওয়া যাবে না।

    তাই বন্যাকবলিত এলাকায় যদি রেশন না পাওয়া যায়, তাহলে হয়তো আগামী দিনে অনাহারে দিন কাটাতে হবে। তাঁদের দাবি,অবিলম্বে আধারের সঙ্গে তাদের রেশন কার্ড যুক্ত করতে হবে।

  • বারুইপুরে ব্যবসায়ীকে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে অপহরণ, পরে পুলিশি তৎপরতায় উদ্ধার, ধৃত ২

    বিশ্ব সমাচার, বারুইপুর: ফিল্মি কায়দায় মারধর করে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে ব্যবসায়ীকে অপহরণকাণ্ডের যবনিকা পতন। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বারুইপুরের অর্জুনা গ্রামের একটি বাগানের ঘর থেকে তাঁকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করল পুলিশ। শুধু তাই নয়, পুলিশ হাতেনাতে ধরে ফেলেছে অপহরণকাণ্ডের দুই মাথাকে। তাদের নাম অভিজিৎ নস্কর ও সুব্রত মণ্ডল। তাদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

    তারা কয়েক লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছিল বলে অভিযোগ। সোমবার বিকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ বারুইপুর থানার কল্যাণপুর পঞ্চায়েতের যুগলপুকুর এলাকায় প্রকাশ্য দিবালোকে মোট ১২ জন অপহরণকারী মিলে এই অপারেশন চালিয়েছে বলে অভিযোগ। রাতে পরিবারের তরফে থানায় অপহরণের অভিযোগ দায়ের করা হয়।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, কল্যাণপুরের চাকারবেড়িয়া এলাকার বাসিন্দা আব্দুল হালিম সরদার পেশায় চাল ব্যবসায়ী। তাঁর নিজস্ব চালের দোকান আছে যুগলপুকুর এলাকায়। ওই দোকানের কর্মচারী কৌশিক মণ্ডল বলেন, সোমবার বিকালে দাদা দোকানেই ছিলেন। আচমকা একটি স্করপিও ও তিনটি বাইকে করে ১০-১২ জন দুষ্কৃতী এসে ঢোকে। দাদাকে মারধর করে। আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে গাড়িতে তোলে। আমি বাঁচাতে এলে আমাকেও মারধর করে আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে ভয় দেখানো হয়।

    এরপর পদ্মপুকুর ধরে গাড়ি নিয়ে চলে যায়। তাঁর দাদা মোস্তাকিম সরদার বলেন, ২০১২-১৩ সালে ভাইয়ের সঙ্গে ব্যবসায়িক কারণে টাকাপয়সা নিয়ে ঝামেলা হয়েছিল বেগমপুরের অভিজিৎ নস্করের। সেই কারণেই এই অপহরণ। তিনি আরও বলেন, অপহরণকারী ফোনে কখনও ৮ লক্ষ টাকা, কখনও ১০ লক্ষ বা ১৬ লক্ষ টাকা চেয়েছে। সবই পুলিসকে জানানো হয়েছে। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, পাওনা টাকা আদায় নিয়েই অপহরণ। অপহৃতের বিরুদ্ধে টাকা ফেরত না দেওয়ার অভিযোগ আছে। তদন্ত চলছে।

  • বকখালি পর্যটন কেন্দ্রকে আকষর্ণীয় করতে এক গুচ্ছ পরিকল্পনা গঙ্গাসাগর বকখালি উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যানের

    রাজকুমার সূত্রধর: বকখালি পর্যটন ক্ষেত্র হলেও দর্শনীয় স্থান বলতে তটভাঙা শ্রীহীন সমুদ্র। ফলে পর্যটকরা
    বেড়াতে গিয়ে সমুদ্র ছাড়া আর কিছু দেখতে পান না। এই জায়গাকে আরো আকর্ষণীয় করার জন্য গঙ্গাসাগর বকখালি
    উন্নয়ন পর্ষদ তৎপর হয়েছে। তবে এই তৎপরতার ভিতর পর্যটন বিকাশের যেমন ভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি সেখান
    থেকে স্থানীয় মানুষের রোজগারের বিষয়টিও ভাবনার মধ্যে রয়েছে।

    গঙ্গাসাগর বকখালি উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান
    যোগরঞ্জন হালদার বলেন, এখন প্রাকৃতিক বিপর্যয় ও করোনার মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের কোষাগার অনেকটা
    টানাটানি করে চলছে। সেদিকে নজর রেখে পর্ষদকে যাবতীয় উন্নয়মুখী কাজ করতে হবে। স্বাভাবিকভাবে জিবিডিএ
    বকখালিকে দর্শনীয় করার ব্যাপারে যে উদ্যোগ নেওয়ার কথা ভেবেছে। তার সঙ্গে স্থানী মানুষের আয়ের পথ যাতে
    করে দেওয়া যায়, সেদিকে জোর দিচ্ছে পর্ষদ। বকখালিতে বাইরে থেকে প্রচুর পর্যটকরা বেড়াতে আসেন। এর ভিতর
    অনেকে কেনাকাটা করতে ভালোবাসেন।

    কিন্তু বকখালিতে কেনাকাটার মতো কোনো জিনিস নেই। সেই রকম ব্যবস্থাও
    নেই। জিবিডিএ এই ফাঁকটা পূরণ করতে চায়। ওই এলাকায় অনেক স্বয়ম্বর গোষ্ঠীর মহিলারা রয়েছেন। তাঁরা দেশীয়
    পদ্ধতিতে নানা ধরণের জিনিস তৈরি করেন। গঙ্গাসাগর বকখালি উন্নয়ন পর্ষদ স্বয়ম্বর গোষ্ঠীর মহিলাদের একটি
    জায়গাতে ছোট ছোট দৃষ্টিনন্দন কুড়েঘর তৈরি করে বসবার ব্যবস্থা করে দেবে। পর্যটকরা ওই সব কুড়েঘরে এসে
    তাঁদের মনপসন্দ যা যা জিনিস ভালো লাগবে তা কিনতে পারবেন। তাতে করে বেড়ানোর পাশাপাশি কেনাকাটার শখ
    অনেকটা পূরণ হবে পর্যটকদের। স্বয়ম্বর গোষ্ঠীর সদস্যদের পাকাপাকি রোজগারের একটা ব্যবস্থা হয়ে যাবে।
    প্রথম দিকে কুড়েঘর থেকে ভাড়া বাবদ কোনো পয়সা নেওয়া হবে না। রোজগার ভালো জায়গাতে পৌঁছালে তখন যাচাই
    করে জিবিডি টোকেন পয়সা সংগ্রহ করবে।

    বকখালিতে বন বিভাগের আওতায় বেশ কিছু হরিণ, কুমির সংরক্ষণ করে
    রাখা আছে। পর্যটকদের কাছে ওই জায়গাটি আরও মনোরম করার জন্য দুটো হাতি, ঘোড়া, হনুমান আনানোর কথা
    ভেবেছে জিবিডিএ। বিষয়টি নিয়ে বন বিভাগের সঙ্গে কথা বলা হবে। এক্ষেত্রে ২ টাকার টিকিট এর ব্যবস্থা করা হবে।
    পর্ষদ থেকেও বন বিভাগকে যথাসাধ্য সাহায্য করা হবে। আগামী জুলাই মাসে জিবিডিএ এর প্রশাসনিক বৈঠকে
    বিষয়গুলি তোলা হবে। যাতে তা করা যায়। এছাড়াও আরও কয়েকটি পরিকল্পনা রয়েছে। তা হল, ফ্রেজারগঞ্জে
    ফ্রেজার সাহেবের বাড়ি এখন ভগ্নদশা ও জঙ্গল ভরে গেছে।

    তাকে ঠিকঠাক করে পর্যটক উপযুক্ত হিসেবে গড়ে
    তোলার কথা ভাবা হয়েছে। সাগর ও বকখালি জুড়ে মৎস্যজীবীদের বাস। এই দু’টি জায়গাতে মৎস্যজীবীদের জন্য
    আশ্রয় শিবির ও স্বাস্থ্যকেন্দ্র করার কথা মাথায় রয়েছে।

  • নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রৌঢ় গ্রেফতার নামখানায়

    অমিত মণ্ডল ও রবীন্দ্রনাথ মণ্ডল, নামখানা: নাবালিকাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে ৫৮ বছরের প্রৌঢ়কে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার নামখানা থানার মদনগঞ্জ এলাকায়। নাবালিকার মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার ওই প্রৌঢ়কে গ্রেফতার করা হয়।

    নাবালিকার মায়ের অভিযোগ, তাঁর মেয়ে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে টিউবয়েল থেকে পানীয় জল আনতে গিয়েছিল। সেই সময় কেউ না থাকায় শেখ ইসমাইল নামে এক প্রৌঢ় তাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। মেয়েটির ওপর লাগাতার পাশবিক অত্যাচার চালায়। অভিযোগ, ঘটনার পর মেয়েটিকে চুপ থাকার জন্য হুমকিও দেয় ইসমাইল। কিন্তু মেয়েটি বাড়িতে ফিরে পুরো ঘটনাটি তার মাকে জানায়। পুলিশ অভিযোগ পেয়ে রবিবার ইসমাইলকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। সোমবার ইসমাইলকে কাকদ্বীপ আদালতে তোলা হয়।

    আইনজীবী সব্যসাচী দাস জানান, ইসমাইলের বিরুদ্ধে শিশু নির্যাতন ও পকসো আইনের মামলা রুজু করা হয়েছে। বিচারক অভিযুক্ত ইসমাইলকে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

  • মৌসুনীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু যুবকের

    বিশ্ব সমাচার, নামখানা: বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল এক যুবকের। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে নামখানা ব্লকের মৌসুনী দ্বীপের বালিয়াড়াতে রবিবার সকালে। মৃত যুবকের নাম ভীমদেব দোলুই। বয়স ১৯।স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত যুবক ভিন রাজ্যে কাজ করতে যেত।

    মাসদুয়েক আগে বাড়ি ফিরেছিল। গত ২৬ মে যশ ও পূর্ণিমার ভরা কটালে মৌসুনী দ্বীপের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়। নদীর জলে বিদ্যুতের খুঁটি থেকে ঘরে আসা লাইন ঠিক করতে মিস্ত্রী ডাকেন ভীম। কিন্তু আসতে দেরি দেখে তিনি নিজে ঠিক করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। বাড়িতে তখন কেউ ছিল না। খবর পেয়ে সবাই যুবকটিক কাকদ্বীপ সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসক। এই ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Back to top button

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home2/biswasam/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757