25 Sep 2021, 6:25 AM (GMT)

Coronavirus Stats

33,624,419 Total Cases
446,690 Death Cases
32,876,319 Recovered Cases

জেলা

  • সাগরে ক্ষতিগ্রস্তদের তারপোলিন দিলেন মন্ত্রী, আসন্ন নিম্নচাপের প্রস্তুতিও চলছে

    বিশ্ব সমাচার, সাগর: টানা ভারী বর্ষণে সুন্দরবনের অন্যান্য জায়গার মতো সাগরদ্বীপের বিভিন্ন এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। টানা বৃষ্টি ও সমুদ্রের জলস্ফীতিতে মাটির বাড়িগুলি দুর্বল হয়ে পড়েছে। সাগর ব্লকের বিভিন্ন এলাকায় বেশ কিছুদিন জল জমে থাকার ফলে বেশ কিছু মাটির বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সেই সমস্ত ক্ষতিগ্রস্ত মাটির বাড়ির ২০০ পরিবারের হাতে সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী বঙ্কিম হাজরা নিজের বিধায়ক তহবিলের কোটা থেকে তারপোলিন তুলে দেন।

    অনুষ্ঠানে বঙ্কিমবাবু ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য মহীতোষ দাস, পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ শ্রীবিন্দু মণ্ডল ও সাগর ব্লকের বিভিন্ন পঞ্চায়েতের প্রধান ও উপপ্রধানরা।বঙ্কিমবাবু জানান, আগামী শনি ও রবিবার আবার নিম্নচাপ। সেই জন্য জেলা প্রশাসন এবং সুন্দরবনের বিভিন্ন ব্লকের বিডিওর সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। পাশাপাশি পুলিশ-প্রশাসন এলাকার জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেছে। সবরকমের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আগাম প্রস্তুতি হিসেবে সুন্দরবনের প্রতিটি পঞ্চায়েতে তারপোলিন, ড্রাই ফুড, চাল ও অন্যান্য সামগ্রী পাঠানো হয়েছে।

    পাশাপাশি নিচু এলাকা থেকে মানুষদের সরিয়ে আনার জন্য ফ্লাড সেন্টারগুলি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। বিশেষ করে ঘোড়ামারা, মৌসুমী থেকে মানুষদের সরিয়ে আনার আগাম ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সেচ দপ্তর ও পঞ্চায়েত একশো দিনের কাজের মাধ্যমে মাটি ফেলে বাঁধগুলির মেরামতের ব্যবস্থা করছে।

  • সাগরের যক্ষা রোগীদের দেওয়া হল করোনার টিকা

    সমরেশ মণ্ডল, সাগর: আগে সাগরদ্বীপের প্রত্যন্ত গ্রামগুলিতে বহু যক্ষা রোগী দেখা যেত। কিন্তু বিজ্ঞানের উন্নতি ও সচেতনতার ফলে এই রোগ আয়ত্তে এসেছে। তবুও এখনও বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বহু টিবি রোগী। করোনা অতিমারিতে টিকে থাকতে গেলে প্রয়োজন কোভিড ভ্যাকসিনের। তাই সেই সমস্ত টিবি আক্রান্ত রোগীদের এবার ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করল সাগর ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তর।

    সাগর ব্লক স্বাস্থ্য প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর শেখ আজিমুদ্দিন জানান, এদিন ১৫ জন যক্ষা রোগীকে টিকা দেওয়া হল। পাশাপাশি যক্ষা রোগ ও করোনা নিয়েও উপস্থিত রোগী ও রোগীর আত্মীয়দের সচেতন করা হয়। উপস্থিত ছিলেন ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক অংশুমান বোস, ব্লক প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর শেখ আজিমুদ্দিন, সিনিয়র ট্রিটমেন্ট সুপারভাইজার কুলান সাঁতরা ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীরা।ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গঙ্গাসাগর মেলার আগে একশো শতাংশ টিকাকরণ করা হবে।

    সেই লক্ষ্যে সাগর ব্লকের বিভিন্ন এলাকায় ভ্যাকসিনের কাজ চলছে। খুব তাড়াতাড়ি পুরো ব্লকে একশো শতাংশ ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শেষ হবে। কিছুদিন আগে সাগর ব্লকের ঘোড়ামারা দ্বীপে একশো শতাংশ ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শেষ হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে একশো শতাংশ ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শেষ হবে বলে ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে।

  • পাথরপ্রতিমার শিক্ষকের ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে নিখোঁজ স্ত্রীকে ফিরে পেলেন স্বামী

    রবীন্দ্রনাথ সামন্ত, পাথরপ্রতিমা: স্ত্রী মানসিক ভারসাম্যহীন। ২০ দিন ধরে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। অনেক খোঁজাখুঁজি করে এবং থানায় মিসিং ডায়েরি করেও তাঁর খোঁজ পাচ্ছিলেন না আবদালপুরের ধীরেন রায়। অবশেষে পাথরপ্রতিমার সুরেন্দ্রনগরের এক শিক্ষকের ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে স্বামী-স্ত্রীর মিলন হল। স্ত্রীকে পেয়ে ভীষণ খুশি ধীরেনবাবু।তারিখটা ছিল চলতি বছরের ২০ সেপ্টেম্বর। পাথরপ্রতিমার পশ্চিম সুরেন্দ্রনগর গ্রামের হরিমন্দির বাজার। ঘড়িতে তখন রাত সাড়ে আটটা।

    কাশীকান্ত জানার চায়ের দোকানে সবাই চা খেতে ব্যস্ত। এমন সময় উস্কোখুস্কো বেশে বছর পঞ্চাশের এক মহিলা এসে বললেন, এক কাপ চা পাওয়া যাবে? দোকানদার অপরিচিত মুখ দেখে বললেন, হ্যাঁ, বেঞ্চে বসুন। চা দিচ্ছি। দোকান ভর্তি খরিদ্দারদের মধ্যে স্বপন জানা ও স্বপন বেরা ওই মহিলাকে জিজ্ঞাসা করলেন, আপনার বাড়ি কোথায়? মহিলা বললেন, স্বামীর নাম ধীরেন রায়। বাড়ি উত্তর বারাসতের মধ্যমগ্রামের আবদালপুরে। তবে ওই মহিলাকে তিন-চারদিন গ্রামে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গিয়েছে বলে স্থানীয় গ্রামবাসীরা জানান।

    স্বপনকুমার জানা বিষয়টি পশ্চিম সুরেন্দ্র নগর আদর্শ বাণীপীঠ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পার্টটাইম শিক্ষক অরুণকুমার জানাকে জানিয়েছিলেন। অরুণবাবু ওই মহিলাকে রাতে স্কুলঘরে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করে দেন। এছাড়া ওই মহিলা যে পশ্চিম সুরেন্দ্রনগর আদর্শ বাণীপীঠে রয়েছেন, তার ঠিকানা এবং মহিলার ছবি ফেসবুক লাইভে পোস্ট করে দেন। ফেসবুক লাইভ থেকে স্ত্রী কোথায় আছে সেই খবর জানতে পেরে প্রতিবেশীকে সঙ্গে নিয়ে মঙ্গলবার হরিমন্দির বাজারে এসে পৌঁছেছিলেন ধীরেন রায়। তিনি অরুণবাবুর সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

    তারপর স্ত্রীর দেখা পান। ওইদিন রাতে ওঁদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করে দেন অরুণবাবু। পরদিন সকালে গ্রামবাসী স্বপন বেরা, স্বপন জানা, সুবল দোলুই এবং অরুণবাবুর উপস্থিতিতে ধীরেনবাবু তাঁর স্ত্রী নিভা রায়কে বাড়িতে নিয়ে যান। ‌এ বিষয়ে ধীরেনবাবু বলেন, স্ত্রীকে পেয়ে আমি খুবই খুশি। শিক্ষক অরুণকুমার জানা এবং এখানকার গ্রামবাসীদের সহযোগিতায় আমার স্ত্রীকে ফিরে পেয়েছি।

    ২০ দিনের মত নিখোঁজ ছিলেন আমার স্ত্রী। কারণ উনি মানসিক ভারসাম্যহীন রোগী। আত্মীয়-স্বজন সবার বাড়িতে অনেক খোঁজাখুঁজি করেছি। এমনকী থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেছি। সবশেষে অরুণবাবুর ফেসবুক লাইভ দেখে এখানে এসেছি এবং স্ত্রীকে বাড়ি নিয়ে যাচ্ছি।

  • দেনার দায়ে ব্যবসায়ী আত্মঘাতী

    প্রদীপকুমার সিংহ, বারুইপুর: দেনার দায়ে আত্মহত্যা করলেন এক ব্যক্তি। বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে একটা বাগানে ঘাষ মারা বিষ খেয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। ঘটনাটি ঘটেছে জয়নগর থানার অন্তর্গত দক্ষিণ বারাসতের গৌড়ের হাট এলাকায়। মৃতের নাম জগা(২৮)। তিনি জানালার কাচ লাগানোর ব‍্যবসা করতেন।

    পরিবার সূত্রে খবর, কাচ কিনতে গিয়ে বাজারে তাঁর অনেক টাকা দেনা হয়ে যায়। পাওনাদাররা টাকার জন্য প্রায়ই চাপ দিত। কিন্তু টাকা শোধ করতে না পারায় রবিবার বিকালে বাড়ি থেকে একটু দূরে বাগানে ঘাষ মারার বিষ খান জগা। স্থানীয় লোকেরা তাঁর বাড়িতে খবর দেন। তাঁরা প্রথমে পদ্মাঘাট গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান।

    সেখানে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় জগাকে বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়। বুধবার রাতে বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে মৃত্যু হয় জগার। এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। এ ব্যাপারে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

  • গ্রামের মাঠে ঢুকে পড়ল একটি বড়সড় কুমির, আতঙ্কিত গ্রামবাসীরা

    স্টাফ রিপোর্টার : নিম্নচাপের টানা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত সুন্দরবনের উপকূল এলাকা। জলমগ্ন মাঠ-ঘাট। অতি ভারী বৃষ্টি ও পূর্ণিমার কোটালের জেরে জলস্তর বেড়েছে নদী ও সমুদ্রে।মঙ্গলবার সকালে আচমকা জগদ্দল নদী থেকে লোকালয়ের মাঠে ঢুকে পড়ে একটি বড়সড় কুমির।

    চাষের জমি দেখতে গিয়েই কুমিরের ওপর নজর পড়ে গ্রামবাসীদের।পাথরপ্রতিমার রাখালপুর আড্ডির বাজারের কাছে জলমগ্ন মাঠে কুমিরটিকে ভাসতে দেখেন গ্রামবাসীরা। তাঁরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।

    নদীর জলস্তর বাড়ার কারণে প্রায় ৭ ফুট দৈর্ঘ্যের কুমিরটি লোকালয়ের মাঠে ঢুকে পড়েছে বলে মনে করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

  • মমতাসহ তৃণমূল প্রার্থীদের জয় চেয়ে দুর্গাপুজোর কর্মযজ্ঞ গোয়ানাড়ায়

    হেদায়তুল্লা পুরকাইত, ডায়মন্ড হারবার: বিধানসভার উপনির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের জয়লাভ এবং ২০২৪ সালে লোকসভা নির্বাচনের পর দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখতে চেয়ে দুর্গা আরাধনার মধ্যে দিয়ে কর্মযঞ্জ শুরু করলেন ডায়মন্ড হারবার ২ নং ব্লক সভাপতি অরুময় গায়েন।

    বুধবার বিকালে গোয়ানাড়া গোবিন্দপুর নবারুণ সংঘ ক্লাবে তা অনুষ্ঠিত হয়। এলাকার বিভিন্ন সম্প্রদায়ের কয়েকশো মহিলার শঙ্খধ্বনির মধ্য দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মূর্তিকে সামনে রেখে শুরু হয় এই কর্মযজ্ঞ।অরুময়বাবু জানান, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ভবানীপুরসহ তিনটি বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হবে। তার প্রচার চলছে জোরকদমে।

    যাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন এবং সেই সঙ্গে ২০২৪ সালে লোকসভা নির্বাচনের পর দেশের প্রধানমন্ত্রী হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তার জন্য দুর্গাপূজোর আগে কর্মযজ্ঞ শুরু হয় গোয়ানাড়া গোবিন্দ নবারুণ সংঘ ক্লাবে।

  • ভরা কোটালের জেরে বাঁধ ভেঙে মৌসুনী সহ নামখানার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

    বিশ্ব সমাচার, নামখানা: ফের প্লাবিত হল মৌসুনী দ্বীপ। বুধবার সকালে বালিয়াড়া এলাকায় ৫০০ মিটার ভাঙা নদীবাঁধ দিয়ে গ্রামে নোনা জল ঢোকে। যশে নদীবাঁধগুলি ভেঙে যাওয়ার কয়েক মাস আগেই এই নদীবাঁধগুলি নতুন করে তৈরি করা হয়েছিল বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। গত কৌশিকী অমাবস্যায় মৌসুনীর বালিয়াড়ার ৫০০ মিটার বাঁধ ও চিনাই নদীর ২০০ মিটার বাঁধ ভেঙে এলাকা প্লাবিত হয়। পঞ্চায়েত থেকে অস্থায়ীভাবে মেরামতি করা হলেও বঙ্গোপসাগরে ভেঙ্গে যাওয়া নদীবাঁধ মেরামত হয়নি বলে অভিযোগ।

    এবারের পুর্ণিমার ভরা কোটালে নদীর জলে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়। কাঁচা মাটি দিয়ে তৈরি করার ফলে বারবার ক্ষতিগ্রস্ত হয় এই বাঁধগুলি। প্রতিনিয়ত যেন চিনাই নদী এবং বঙ্গপসাগর ফুঁসছে মৌসুনি দ্বীপটাকে গ্রাস করার জন্য। এলাকার বাসিন্দারা যথেষ্ট আতঙ্কিত।চাষের জমি, মাছের ভেড়ি, পানের বরজসহ অনেক বসতবাড়িতে জল ঢুকে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। কিছু কিছু জায়গায় জিও চট দেওয়া থাকলেও সেখানে থেকে চিনাই নদীর জল উপচে গিয়ে গ্রামে ঢুকেছে।

    এলাকার বাসিন্দারা আতঙ্কিত। এখন কিছু মানুষ ফ্লাড সেন্টারে রয়েছে। নামখানা ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের শুকনো খাবার ও পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দারা বারবার কংক্রিটের বাঁধ চেলেও কোনও সুরাহা হয়নি বলে অভিযোগ। প্রশাসনের কাছে তাঁরা বারবার আর্জি জানাচ্ছেন, অবিলম্বে কংক্রিটের স্থায়ী নদীবাঁধ তৈরি করা হোক মৌসুনি দ্বীপে। নাহলে একটা সময় মৌসুনি দ্বীপের অস্তিত্বই থাকবে না।

    অন্যদিকে, নামখানার নাদাভাঙারও কিছুটা অংশ ভেঙে গিয়ে জল ঢুকেছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। এছাড়াও ঈশ্বরীপুর ও দ্বারিকনগর, মৌসুনীর পয়লাঘেরী এলাকায় কিছু কিছু জায়গায় নদীবাঁধে ফাটল দেখা দিয়েছে। এ বিষয়ে নামখানার বিডিও শান্তনু সিংহঠাকুর জানান, সেচ দপ্তরের সঙ্গে কথা বলে খুব শীঘ্রই বাঁধ মেরামতির কাজ শুরু করা হবে।

  • দুর্গত মানুষকে রান্না করা খাবার দিলেন বিধায়ক লাভলী মৈত্র

    বিশ্ব সমাচার, সোনারপুর: অতিভারী বৃষ্টির জন্য সোনারপুর রাজপুর পুরসভা ও পঞ্চায়েত এলাকার বেশ কিছু জায়গায জলমগ্ন হয়ে রয়েছে। মানুষ কাজে বেরোতে পারছে না। তাদের রুজি রোজগার প্রায় বন্ধ। বুধবার সোনারপুর দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক লাভলী মৈত্র দুর্গত এলাকায় আসেন। বেশ কিছু জায়গা পরিদর্শনের পরে নিজে রান্নার কাজে হাত লাগান।

    দুপুরে রান্না করা খাবার দুর্গতদের পরিবেশন করেন। তিনি দলের কর্মীদের নির্দেশ দেন, যতদিন না পর্যন্ত এসব অঞ্চল থেকে জল সরছে, ততদিন এই রান্না করা খাবার দুর্গতদের দিতে হবে। শুধু তাই নয়, জমে থাকা জল বের করতে বেশ কিছু জায়গায় পাম্প বসানোর ব্যবস্থা করেছে।

  • যশে ক্ষতিগ্রস্ত মহিলাদের মুরগির বাচ্চা দেওয়া হল নামখানায়

    বিশ্ব সমাচার, নামখানা: দক্ষিণ ২৪ পরগনার নামখানা ব্লকের নারায়ণপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গণেশনগর গ্রামের মহিলাদের স্বনির্ভর করে তোলার জন্য মুরগির বাচ্চা দেওয়া হল। মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীর স্বামী বিবেকানন্দ এবং অ্যাকশন এইডের সহযোগিতায় বুধবার মুরগির বাচ্চা দেওয়া হয়। সেই সঙ্গে মুরগির খাবার ও ওষুধ দেওয়া হয়।

    যশের পর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় মহিলাদের স্বনির্ভর করে তোলার জন্য প্রায় ১০০টি পরিবারের দুঃস্থ মহিলাদের হাতে ৩০টি করে মুরগির বাচ্চা এবং ওষুধ ও ৫০ কেজি খাদ্যসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে অ্যাকশন এইডের সদস্য সুরজিৎ চট্টোপাধ্যায় জানান, যশের সময় তাঁরা যখন এই সমস্ত ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় সাহায্য করতে এসেছিলেন, ওই সময় এইসব মহিলা কিছু করে স্বনির্ভর হওয়ার আগ্রহ দেখান।

    তাঁদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় এই অ্যাকশন এইড সংস্থা। তাঁরা আশা করেন, এই মুরগির বাচ্চা প্রতিপালন করে মহিলারা স্বনির্ভর হতে পারবেন। ভবিষ্যতে বাকি মহিলাদের স্বনির্ভর করতে চেষ্টা করা হবে।

  • কুলপিতে কিশোর স্বাস্থ্য মেলা

    সানওয়ার হোসেন, কুলপি: বুধবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলপির করঞ্জলিতে কুলপি গ্রামীণ হাসপাতাল ও সিআইএনআএই-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হল কিশোর স্বাস্থ্য মেলা। কুলপির ছ’টি গ্রাম পঞ্চায়েতকে নিয়ে এই মেলা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে ১০ থেকে ১৮ বছরের ছেলেমেয়েদের নিয়ে সমাজ সচেতনতা মূলক বার্তা দিতে আলাদা আলাদা নাটক মঞ্চস্থ করা হয়।

    এই মেলাতে শিশু নির্যাতন ও শিশু পাচার, বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য, পরিবার পরিকল্পনা, বাল্যবিবাহ বিষয়ে একাধিক স্টল ছিল। মেলাতে উপস্থিত ছিলেন ডায়মন্ড হারবারের সিএমওএইচ ডাঃ দেবাশিস রায়, কুলপির বিধায়ক যোগরঞ্জন হালদার, ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক দেবর্ষি মুখোপাধ্যায়, বিএমওএইচ ডাঃ তনুশ্রী কুণ্ডু, ঢোলাহাট থানার আইসি কৌশিক নাগ, কুলপি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি চিত্তরঞ্জন হালদার সহ বিশিষ্টজনেরা।

    জানা গিয়েছে, এ ধরনের অনুষ্ঠান আগামী দিনের প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেও অনুষ্ঠিত হবে।

Back to top button