25 Sep 2021, 5:54 AM (GMT)

Coronavirus Stats

33,624,419 Total Cases
446,690 Death Cases
32,876,319 Recovered Cases

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি

  • কোভিশিল্ড ডোজের ব্যবধান বাড়ানোর বিতর্কের জাবাব দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

    সংবাদ সংস্থাঃ করোনার ভ্যাকসিন কোভিশিল্ডের দু’টি ডোজের মধ্যে প্রথমে ৬ থেকে ৮ সপ্তাহ ব্যবধান রাখা হয়েছিল৷ পরে সেই ব্যবধান বাড়িয়ে ১২ থেকে ১৬ সপ্তাহ করা হয়৷ পরে এই নিয়ে ব্যাপক বিতর্কও হয়৷ বুধবার সেই সব বিতর্কের জবাব দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।

    তিনি জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে নেওয়া এই সিদ্ধান্ত স্বচ্ছতার সঙ্গে নেওয়া হয়েছে৷ আর এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বৈজ্ঞানিক তথ্যও যাচাই করে দেখা হয়েছে৷ তার পরই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এদিন এই নিয়ে একটি টুইট করেন হর্ষ বর্ধন৷ সেই টুইটেই তিনি গোটা বিষয়টি জানান৷ সঙ্গে বিবৃতিও জুড়ে দিয়েছেন৷ যে বিবৃতিটি আসলে ন্যাশনাল টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজারি গ্রুপ অন ইমিউনাইজেশনের প্রধান ড. এনকে অরোরার৷ ওই বিবৃতিতে দেখা যাচ্ছে যে ড. অরোরা জানিয়েছেন, ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ৬৫ থেকে ৮৮ শতাংশ তখনই হচ্ছে, যখন দু’টি ডোজের মধ্যে ব্যবধান অন্তত ১২ সপ্তাহ থাকছে৷ এই রিপোর্টটি ইউকে হেলথ রেগুলেটর পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডের৷

    সেটাও ওই বিবৃতিতে জানিয়েছেন ড. অরোরা৷ তাঁর দাবি, ব্রিটেনে করোনার আলফা ভ্যারিয়্যান্টের বিরুদ্ধে এই পদ্ধতি সাফল্য লাভ করে৷ সেই থেকেই কোভিশিল্ডের দু’টি ডোজের মধ্যে ব্যবধান বাড়ানোর বিষয়টি সামনে আসে৷ সেই মতোই ভারতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ যদিও বিজ্ঞানীদের অন্য একটি অংশের বক্তব্য, এই ব্যবধান ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ হলে সবচেয়ে ভাল হত ৷ ১২ থেকে ১৬ সপ্তাহ হলে ব্যবধান অনেক বেশি হয়ে যাচ্ছে৷

  • করোনাজয়ীদের জন্য ভ্যাকসিনের একটি ডোজই যথেষ্ট, দাবি বিজ্ঞানীদের

    সংবাদ সংস্থাঃ করোনাজয়ীদের জন্য ভ্যাকসিনের একটি ডোজই যথেষ্ট।সম্প্রতি এক গবেষণাপত্রে এই তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।বিজ্ঞানীদের দাবি, একটি ডোজ নেওয়ার পরই সংক্রমিতদের শরীরে তৈরি হয়েছে মেমরি টি সেল।সেই সঙ্গে পর্যাপ্ত অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।ফলে ফের করোনা সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা কম। সম্প্রতি এই বিষয়ে গবেষণা করেছিল ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল ফর ইনফেকশাস ডিজিসেস।

    এই গবেষণাপত্র অনুযায়ী, ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজটি নেওয়ার আগে যারা করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন, অন্য আরও একটি ডোজ প্রাপকদের তুলনায় তাঁর শরীরে বেশি অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।বিশেষজ্ঞদের মতে, এই বিষয়টি প্রমাণিত হলে যে কোনও দেশে ভ্যাকসিনের চাহিদা অনেকটাই কমে যাবে।কারণ, সেক্ষেত্রে বহু মানুষেরই ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার প্রয়োজন পড়বে না।তবে এই বিষয়টি বিজ্ঞানীদের মধ্যে মতভেদ রয়েছে।বিজ্ঞানীদের একাংশের দাবি, প্রত্যেক করোনা সংক্রমিতদের শরীরে সমপরিমাণে অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে না।

    সকলের ক্ষেত্রে অ্যান্টিবডির স্থায়িত্ব সমান নয়।সেক্ষেত্রে করোনা জয়ীদের একটি ডোজ নেওয়ার তত্বটি কতটা কাজে আসবে, তা নিয়েই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

  • গল দেশের ৩০টি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে চুক্তি করে চালু করলো নিউজ শোকেস

    সংবাদ সংস্থা : ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন ফিচার করার জন্য সঠিক মূল্য প্রদান করুক গুগল। দেশের ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমগুলির এই আর্জি অবশেষে মেনে নিল বিশ্বের বৃহত্তম সার্চ ইঞ্জিন। মঙ্গলবার ভারতে চালু হল গুগলের আন্তর্জাতিক লাইসেন্সিং প্রোগ্রাম নিউজ শোকেস ।প্রাথমিকভাবে গুগল এই উদ্দেশ্যে দেশের ৩০টি প্রথম সারির ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস ডিজিটাল স্ট্রিমস, দ্য হিন্দু গ্রুপ, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস গ্রুপ, এবিপি লাইভ, ইন্ডিয়া টিভি, এনডিটিভি, জি নিউজ, অমর উজালা, ডেকান হেরাল্ড, টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া, পাঞ্জাব কেশরী, ইন্দো এশিয়ান নিউজ সার্ভিসেস এবং এশিয়ান নিউজ নেটওয়ার্ক। গুগল নিউজে নিউজ শোকেসে স্টোরি প্যানেলে এবার থেকে এই সংবাদমাধ্যমের কনটেন্ট রাখবে গুগল। ইংরাজি ও হিন্দি, দুই ভাষাতেই সংবাদ পড়া যাবে। শীঘ্রই অন্যান্য স্থানীয় ভাষাও যোগ করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

  • স্যাটেলাইট ডিজাইনিং প্রোগ্রাম ‘কুস্যাট’ চালু করেছে চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়

    সংবাদ সংস্থা : মহাকাশ গবেষণার ক্ষেত্রে আগামী প্রজন্মকে আকর্ষণ করতে এক অভিনব পদ্ধতি গ্রহণ করেছে চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয়। দেশের এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সম্প্রতি ১৪ মে এয়ারস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের জন্য স্টুডেন্ট স্যাটেলাইট ডিজাইনিং এবং প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ‘কুস্যাট’ চালু করেছে। ‘কুস্যাট’ এর ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থার বিজ্ঞানী ডঃ ওয়াইএস রাজন, ইসরোর প্রাক্তন পরিচালক আরএম ভাসগাম, এবং মঙ্গলযান সহ চন্দ্রযান -১ এর প্রোগ্রাম ডিরেক্টর ডঃ মেলস্বামী অন্নাদুরাই ।চণ্ডীগড় বিশ্ববিদ্যালয় আগামী ১০ থেকে ১২ মাসের মধ্যে একটি বহুমুখী ন্যানো-স্যাটেলাইট ডিজাইন করার পরিকল্পনা করেছে যা ইসরো দ্বারা চালনা করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সাতনাম সিংহ সান্ধু এই বিষয়ে বলেছেন, স্যাটেলাইটটির নকশার জন্য প্রতিষ্ঠান ১ কোটি টাকা ব্যায়ের পাশাপাশি ইতিমধ্যে শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ শুরু পর্ব শুরু করে দিয়েছে। স্যাটেলাইট প্রকল্পের একটি গ্রাউন্ড কন্ট্রোল স্টেশন স্থাপনের জন্য কাজ করছে বিশ্ববিদ্যালয়। এর পাশাপাশি মিস্টার সান্ধু আরও যোগ করে বলেন, শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ পরিচালনায় অংশ নেবে ইসরোর বিজ্ঞানীরা সহ প্রাক্তন ভারতীয় ও আন্তর্জাতিক মহাকাশ বিজ্ঞানীরা।

  • ভারত মহাসাগরে ভেঙে পড়ল চিনের রকেটের ধ্বংসাবশেষ: রিপোর্ট

    বিশ্ব সমাচারের ওয়েবডেস্কঃ ক্রমেই বাড়ছিল আশঙ্কা। কয়েক দিন আগে থেকেই জানা গিয়েছিল, চিনের অতিকায় এক রকেটের ভিতরের ১০০ ফুট দীর্ঘ একটি অংশ, যার ওজন ২১ টন আছড়ে পড়তে চলেছে পৃথিবীর বুকে! অবশেষে রবিবার, মালদ্বীপের কাছে ভেঙে পড়ল চিনের সেই রকেটের ধ্বংসাবশেষ।

    মিলল স্বস্তি। রবিবার চিনের তরফে একথা জানানো হয়েছে। সেদেশের সরকার-নিয়ন্ত্রিত চায়না সেন্ট্রাল টেলিভিশনের (সিসিটিভি) দাবি, রবিবার সকালে ভারত মহাসাগরের উপর সেই কৃত্রিম উপগ্রহের ধ্বংসাবশেষ বিচ্ছিন্ন হয়েছে।মার্কিন সেনার তথ্য ব্যবহারকারী মহাকাশ সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ের উপর নজরদারি চালানো স্পেস-ট্র্যাকও জানিয়েছে, ভেঙে পড়েছে লং মার্চ ৫বি ওয়াই ২ রকেট। টুইটারে সংস্থার তরফে বলা হয়েছে, ‘যাঁরা পৃথিবীর পরিমণ্ডলে লং মার্চ ৫বি রকেটের ঢোকার উপর লক্ষ্য রাখছিলেন, তাঁরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারেন।

    রকেট ভেঙে পড়েছে।’ গত ২৯ এপ্রিল চিনের ‘হেভেনলি প্যালেস’ স্পেস স্টেশন থেকে উৎক্ষেপিত হয়েছিল লং মার্চ ফাইভ বি রকেটটি। পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করার পর থেকেই উদ্বেগ বাড়ছিল রকেটটিকে নিয়ে। কারণ মাধ্যাকর্ষণ শক্তির জন্য দ্রুত পৃথিবী সেটিকে নিজের বুকে টেনে নিচ্ছিল। তবে স্বস্তির খবর একটাই ছিল যে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছিল, বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করা মাত্রই ভস্মীভূত হয়ে যাবে রকেটটি। সামান্য অংশবিশেষই আছড়ে পড়বে।

    সেই পূর্বাভাসই মিলেছে। তবে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছিল, রকেটটি ভেঙে পড়বে তুর্কমেনিস্তানের কাছে। কিন্তু তার পরিবর্তে সেটি ভেঙে পড়েছে মলদ্বীপে।

  • কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে করোনা নিয়ে ‘আপত্তিকর’ টুইট মুছে দিল টুইটার

    বিশ্ব সমাচারের ওয়েবডেস্কঃ করোনায় নাজেহাল দেশ। দিন যত যাচ্ছে ততই উদ্বেগ বাড়িয়ে দেশের একের পর এক রাজ্যকে কাবু করে দিচ্ছে অদৃশ্য এই মহামারী। আর এই সংকটজনক পরিস্থিতিতে করোনা নিয়ে দেশের ভালো-মন্দ কথা বলায় বেশ কিছু উত্তেজক টুইট মুছে দিল টুইটার।

    জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে প্রায় ৫০ টি টুইট ব্লক করে দিয়েছে টুইটার অফিসিয়াল। যদিও ঠিক কোন কোন টুইট গুলি মুছে ফেলা হয়েছে তা অবশ্য বলেনি টুইটার। সূত্রের খবর, এই টুইট ব্লকের লিস্টে রয়েছেন দেশের বহু বিশিষ্ট জনেরা। যারা করোনা আবহে সরকারের কাজকর্মের ভালো খারাপ দিকগুলি নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন টুইটারে।

    তাঁদের মধ্যে রয়েছেন সাংসদ রেবন্ত রেড্ডি, রাজ্যের মন্ত্রী মলয় ঘটক, অভিনেতা বিনীত কুমার সিং এবং পরিচালক বিনোদ কাপরি ও অবিনাশ দাস। যদিও এই বিষয়ে কেন্দ্রের দাবি, ওই টুইটগুলি ভারতের তথ্যপ্রযুক্তি আইন অনুযায়ী ঠিক নয়।

  • রাফায়েল চুক্তির পর মধ্যস্থতাকারীকে ১ মিলিয়ন ইউরো টাকা দিয়েছে দাসো!

    সংবাদ সংস্থা : চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ার পর রাফালে ফাইটার জেটস ভারতীয় মধ্যস্থতাকারীকে ১ মিলিয়ন ইউরো টাকা দিয়েছে ফরাসি সংস্থা দাসো। ফরাসী দুর্নীতি দমন কর্তৃপক্ষকে এনিয়ে কোনও ব্যাখ্যা দিতে পারেনি ফ্রান্সের এই সংস্থা। রবিবার এই খবর প্রকাশিত হয়েছে। ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে ফ্রান্সের দুর্নীতি দমন কর্তৃপক্ষ এই লেনদেনের কথা জানতে পারে। এরপরই রাফালে প্রস্তুতকারক সংস্থা দাসোকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তারা। ২০১৬ সালে ২৩ সেপ্টেম্বর রাফালে চুক্তি চ‚ড়ান্ত হওয়ার পর দাসো ভারতের একটি সাব কন্ট্রাকটরকে এই টাকা দেয়। দাসোর পক্ষ থেকে জানানো হয়, ভারতীয় ওই সংস্থাকে এই টাকা দেওয়া হয়েছে ৫০টি রাফালের বড় রেপ্লিকা বানানোর জন্য। যদিও ফ্রান্সের এই সংস্থা এনিয়ে কোনও প্রমাণ দাখিল করতে পারেনি। এমনকী কেন এই রেপ্লিকা বানানোর প্রয়োজন হয়ে পড়ল তার সঠিক উত্তর দিতে পারেনি দাসো।

  • ইন্দো-ফ্রান্স তৃতীয় মহাকাশ অভিযানে প্রস্তুতি শুরু ইসরোর: শিভান

    সংবাদ সংস্থা: ইন্দো-ফ্রান্স তৃতীয় যৌথ মহাকাশ অভিযানে কাজ করছে ইসরো । শনিবার জানালেন সংস্থার অধিকর্তা কে শিভান। এর আগে ২০১১ আর ২০১৩ সালে ফরাসি মহাকাশ গবেষণা সংস্থা সিএনইএস-র সঙ্গে যৌথ ভাবে এই অভিযান চালিয়েছিল ইসরো।

    মেঘা ট্রপিক আর সরল অল্টিকা এই দুই অভিযান চালানো হয়েছিল।সিএনইএস এবং ইসরো তৃষ্ণা উপগ্রহের মাধ্যমে প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ সম্পন্ন করেছে। এবার যৌথ অভিযানের লক্ষে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। মহাকাশ গবেষণায় যৌথ পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং বৈজ্ঞানিক যন্ত্রাদি মহাকাশে প্রেরণ করতে আলোচনা শুরু হয়েছে ফ্রান্সের সঙ্গে। এমনটাও জানিয়েছেন শিভান। পাশাপাশি মানব চালিত মহাকাশ যান প্রেরণেও আগ্রহ দেখিয়েছে ফরাসি সরকার।

    মহাকাশ গবেষণার প্রসার আর বাড়াতে যৌথ সঙ্কল্প গ্রহণ করেছে ইসরো এবং সিএনইএস।এদিকে, গত নভেম্বরে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা থেকে মহাকাশে পাড়ি দিল ইসরোর আর্থ ইমেজিং স্যাটেলাইট EOS-01। বিদেশের আরও নয়টি স্যাটেলাইটকে সঙ্গে করে নিয়ে পিএসএলভি-সি ৪৯ -এ চেপে শুক্রবার মহাকাশে পাড়ি দেয় EOS-01।

  • আগামী বছরের এপ্রিলের মধ্যেই সবক’টি রাফাল হাতে পাবে ভারত: রাজনাথ সিং

    সংবাদ সংস্থাঃ আগামী বছরের এপ্রিল মাসের মধ্যেই অনুমোদনপ্রাপ্ত সবক’টি রাফাল যুদ্ধবিমান ভারতীয় বায়ুসেনার অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে ৷ সোমবার রাজ্যসভায় দাঁড়িয়ে একথা জানান কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং৷ এর মধ্যে চলতি বছরের মার্চ মাসের মধ্যেই আরও সাতটি রাফালে হাতে পাবে বায়ুসেনা৷

    ভারতীয় বায়ুসেনার এক আধিকারিক এই প্রসঙ্গে বলেন, প্রথম দফায় গত বছরের ২৯ জুলাই পাঁচটি রাফাল ভারতের মাটি ছোঁয়৷ এরপর চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারি আরও তিনটি বিমান হাতে পায় ভারতীয় বায়ুসেনা ৷ ফ্রান্স থেকে রওনা হওয়ার পর একটানা উড়ে ২৭ জানুয়ারি রাতে ভারতে আসে সেগুলি৷ পরবর্তীতে আরও তিনটি রাফাল যোগ দেয় ভারতীয় বায়ুসেনায়৷

    ভারতের পথে ওড়ার সময় ভাসমান অবস্থাতেই সফলভাবে বিমানে জ্বালানি ভরার কাজও সারা হয়৷

  • ভারতীয় করোনা টিকা কিনতে আগ্রহী ২৫টি দেশ: বিদেশমন্ত্রী

    সংবাদ সংস্থাঃ ইতিমধ্যেই ১৫টি দেশে পাঠানো হয়েছে ভারতে তৈরি করোনার প্রতিষেধক, তালিকায় রয়েছে আরও ২৫টি দেশ, শনিবার এমনটাই জানালেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। অমরাবতীতে একটি সাংবাদিক সম্মেলন থেকে তিনি বলেন, “আপাতত দরিদ্র, সাশ্রয়ী ও ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থার সঙ্গে সরাসরি চুক্তি করেছে, এমন তিনধরনের দেশ ভারতে তৈরি ভ্যাকসিনের আবেদন জানিয়েছে। যতদূর আমি জানি, এখনও অবধি মোট ১৫টি দেশে ভারতের তৈরি করোনা টিকা পাঠানো হয়েছে।”তিনি জানান,

    আরও ২৫টি দেশ এই ভ্যাকসিনের জন্য আবেদন জানিয়েছে। বিদেশমন্ত্রী আরও জানান, বেশ কিছু দরিদ্র দেশকে বিশেষ ছাড়ে করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে।অন্যদিকে, ভারত যে দামে টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলির কাছ থেকে টিকা কিনছে, সেই মূল্যেই করোনা টিকা রপ্তানির আবেদন জানিয়েছে বেশ কয়েকটি দেশ। এছাড়া বেশ কয়েকটি দেশ টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলির সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করে ভ্যাকসিন কিনতেও

    আগ্রহ দেখিয়েছেন।

Back to top button