23 Jun 2021, 3:05 AM (GMT)

Coronavirus Stats

30,067,305 Total Cases
391,385 Death Cases
29,034,224 Recovered Cases

biswasamachar patrika

  • দ্বাদশের পরীক্ষা নিয়ে সিবিএসই, সিআইএসসিই-র সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ নয় : সুপ্রিম কোর্ট

    সংবাদ সংস্থাঃ সিবিএসই বা সিআইএসসিইয়ের পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্তে কোনওরকম হস্তক্ষেপ করা হবে না। মঙ্গলবার এমনটাই জানাল সুপ্রিম কোর্ট। সেইসঙ্গে দ্বাদশ শ্রেণির বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে যে একাধিক আবেদন দাখিল করা হয়েছিল, তাও খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। বেঞ্চের তরফে জানানো হয়, বিভিন্ন বোর্ড কী সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা বিবেচনা করে দেখবে না সুপ্রিম কোর্ট।

    সংশ্লিষ্ট বোর্ড নিজেদের বৃহত্তর স্বার্থের কথা ভেবে সিদ্ধান্ত নিতে পারে। পাশাপাশি বেঞ্চের তরফে জানানো হয়, পরীক্ষা নিয়ে চূড়ান্ত একটা ঘোষণা বজায় রাখতে হবে। কারণ অনিশ্চয়তার ফলে পড়ুয়ার মনে প্রভাব পড়ছে। সুপ্রিম কোর্টের তরফে প্রশ্ন করা হয়, ‘আমরা কি বোর্ডের সিদ্ধান্ত পালটে দিয়ে ২০ লাখ পড়ুয়াকে অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দেব?’ চলতি মাসের গোড়ার দিকেই দ্বাদশ শ্রেণি পরীক্ষা বাতিল করে দিয়েছে সিবিএসই বা সিআইএসসিই। ইতিমধ্যে বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি আদালতে জমা দিয়েছে দুই বোর্ড। যা বজায় রেখেছে সুপ্রিম কোর্ট। দুই বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে, আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে ফলাফল প্রকাশিত হবে।

    সিবিএসই আবার জানিয়েছে, ফলাফল প্রকাশের পর যে পড়ুয়ারা সন্তুষ্ট হবেন না, তাঁরা ঐচ্ছিক পরীক্ষার জন্য অনলাইনে নথিভুূক্ত করতে পারবেন। যে পড়ুয়ারা সেই ঐচ্ছিক পরীক্ষায় বসবেন, তাঁদের ক্ষেত্রে ঐচ্ছিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামী ১৫ অগস্ট থেকে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে শুধুমাত্র মূল বিষয়গুলির পরীক্ষা নেওয়া হবে।

  • খুলে গেল কালীঘাট মন্দিরের দরজা

    স্টাফ রিপোর্টারঃ করোনা পরিস্থিতি থিতিয়ে আসতেই খুলে গেল কালীঘাট মন্দির। মঙ্গলবার সকাল ৬টায় কালীঘাট মন্দির খোলা হয়। আপাতত বেলা ১২টা পর্যন্ত খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এখনই গর্ভগৃহে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। কালীঘাট টেম্পল কমিটির সহ সভাপতি বিদ্যুৎ হালদার জানান, ‘‌মা কালীর দর্শন চেয়ে আমাদের কাছে অনেক অনুরোধ আসছিল।

    তাই আমরা বৈঠক করে দিনে ৬ ঘণ্টা মন্দির খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কিন্তু আমরা জানিয়ে দিয়েছি, করোনা বিধি মেনেই মন্দিরে প্রবেশ করতে হবে। দূর থেকে দর্শন করে মন্দির থেকে বেরিয়ে যেতে হবে।’‌ এদিন মন্দির খোলা রাখার জন্য প্রশাসনিক সব ব্যবস্থাই রাখে মন্দির কমিটি। হিন্দু শাস্ত্র মতে, মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে অম্বুবাচী। এই সময় ২২ থেকে ২৫ জুন মন্দির বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু কালীঘাটের ক্ষেত্রে অবশ্য নিয়ম আলাদা।

    এই সময় কালীঘাট মন্দিরে নিত্যপুজো ও ভোগ হয়। অম্বুবাচী তিথি হলেও কালীঘাট মন্দিরে ভক্তদের ঢুকতে কোনও বাধা নেই বলে মন্দির কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিয়েছে।

  • সারদার টাকা ফেরাতে কমিটি গড়তে চলেছে কলকাতা হাইকোর্ট

    স্টাফ রিপোর্টারঃ সারদার উদ্ধার হওয়া টাকা আমানতকারীদের ফেরাতে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল আদালত। মঙ্গলবার সারদাকাণ্ডের একটি মামলার শুনানি চলাকালীন টাকা ফেরাতে কমিটি গঠনের কথা ঘোষণা করেন প্রধান বিচারপতি। জানান সেজন্য ১ সদস্যের কমিটি গড়বে আদালত।

    প্রধান বিচারপতি জানিয়েছেন, আমানতকারীদের টাকা দ্রুত ফেরানোই একমাত্র লক্ষ আদালতের। সারদাকাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পর আমানতকারীদের ফেরানোর জন্য ৫০০ কোটি টাকা দিয়েছিল রাজ্য সরকার। অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শ্যামল সেনের তত্ত্বাবধানে কমিটি গঠন করে সেই টাকা আমানতকারীদের মধ্যে বিলি করা হয়।

    তার পরও কমিশনের হাতে রয়ে গিয়েছিল প্রায় ১২৮ কোটি টাকা। সঙ্গে সারদার বিভিন্ন সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে বেশ কিছু টাকা জমা রয়েছে সিবিআইয়ের কোষাগারে। সেই সব মিলিয়ে টাকা ফেরত দিতে তৎপর হল আদালত।

  • দেশের দৈনিক করোনা আক্রান্ত নামল ৪২ হাজারে, টিকাকরণে নয়া রেকর্ড ভারতের

    সংবাদ সংস্থা : একই দিনে দেশের করোনা পরিসংখ্যানে জোড়া স্বস্তি। একদিকে যেমন দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা কমতে কমতে নেমে এল ৪২ হাজারে। অন্যদিকে তেমনই করোনার টিকাকরণে নয়া রেকর্ড গড়ল দেশ। একদিনেই দেশে টিকা পেলেন ৮৬ লক্ষের বেশি মানুষ। যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

    আগামী মাস থেকে দৈনিক এক কোটি মানুষের টিকাকরণের যে টার্গেট কেন্দ্র নিয়েছে, তার অনেকটাই কাছাকাছি চলে এসেছে ভারত।মঙ্গলবার সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৪২ হাজার ৬৪০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যা গত ৯১ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন। ফলে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৯৯ লক্ষ ৭৭ হাজার ৮৬১ জন। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আপাতত মৃতের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৮৯ হাজার ৩০২ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ১৬৭ জনের। দেশের দৈনিক সংক্রমণের হার অনেকদিন ধরেই নিম্নমুখী। তবে, স্বাস্থ্যমন্ত্রককে উদ্বেগে রাখছিল মৃত্যুর পরিসংখ্যান।

    এবার মৃতের সংখ্যাতেও ক্রমশ স্বস্তি ফিরছে।স্বাস্থ্যমন্ত্রকের জন্য বড় স্বস্তির জায়গা হল অ্যাকটিভ কেস। এদিন নতুন করে অ্যাকটিভ কেস কমেছে ৩৮ হাজারেরও বেশি। যার ফলে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ৬ লক্ষ ৬২ হাজার ৫২১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ৮১ হাজার ৮৮৯ জন। ইতিমধ্যেই ভারতে ২৮ কোটি ৮৭ লক্ষ ৬৬ হাজার ২০১ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে রেকর্ড ৮৬.১৬ লক্ষ মানুষ টিকা পেয়েছেন সোমবার। গত ২৪ ঘন্টায় করোনা পরীক্ষা হয়েছে ১৬ লক্ষের বেশি মানুষের।

  • স্কিল ডেভলপমেন্টে সেরা বাংলা

    স্টাফ রিপোর্টার : রাজ্যে স্কিল প্রশিক্ষণে আরও উন্নতি করতে বিশেষ কমিটি গড়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এই কমিটি করা হয়েছে। স্কিল বাড়ানোর ক্ষেত্রে কিভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া যায় এবং সেই প্রশিক্ষণের পর তাঁদের প্লেসমেন্টের ব্যবস্থা করা, এই দুই বিষয়ে কমিটি ১৫ দিনের মধ্যে মুখ্যমন্ত্রীকে রিপোর্ট দেবে।সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী জানান, দেশের মধ্যে স্কিল ডেভেলপমেন্ট রাজ্য প্রথম হয়েছে।

    জাতীয় স্তরে ১০টি সেরা আইটিআই-এর মধ্যে রাজ্যের ছ’টি আইটিআই রয়েছে। দেশের মধ্যে সেরা আইটিআই হয়েছে নাকাশিপাড়া গভর্মেন্ট আইটিআই। এছাড়াও চতুর্থ স্থানে রয়েছে কালিয়াগঞ্জ, পঞ্চম স্থানে খাতরা, ষষ্ঠ স্থানে পূর্বস্থলী, অষ্টম স্থানে নয়াগ্রাম, এবং দশম স্থানে রয়েছে দুবরাজপুর সরকারি আইটিআই। এদিন মুখ্যমন্ত্রী স্কিল ডেভেলপমেন্ট নিয়ে বৈঠক করেন। সেখানে ছিলেন মুখ্যসচিব এইচ কে দ্বিবেদী, স্বরাষ্ট্রসচিব বি পি গোপালিকা এবং অন্যান্য শীর্ষকর্তারা।

    মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, শুধুমাত্র আইটিআই নয়, রাজ্যের ছেলেমেয়েরাও স্কিল কম্পিটিশনে ভাল ফল করেছে। নবান্ন সূত্রে খবর, ‘অল ইন্ডিয়া ট্রেড টেস্ট’-এ রাজ্যের চারটি মেয়ে এবং তিনটি ছেলে দেশের মধ্যে বেস্ট ট্রেনি হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছেন।

  • তৃতীয় ঢেউতে আক্রান্ত হতে পারে শিশুরা,শহরে শুরু হচ্ছে শিশুদের সেফ হোম

    স্টাফ রিপোর্টারঃ আর কয়েক সপ্তাহ পরেই করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে বাংলায়। তবে এবার সবথেকে উদ্বেগ ছড়াচ্ছে শিশুদের নিয়ে। স্বাস্থ্য় বিশেষজ্ঞদের দাবি করোনার তৃতীয় ঢেউতে আক্রান্ত হতে পারে ছোট্ট শিশুরা। তাদের রক্ষা করতে এবার নানা পরিকল্পনা নিচ্ছে স্বাস্থ্য় দফতর।

    এতদিন বড়দের জন্য চালু ছিল সেফ হোম। এবার করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের কথা মাথায় রেখে পাইকপাড়ার হরেকৃষ্ণ শেঠ লেনে আরজিকর লেডিজ হস্টেলের ভেতর তৈরি রাখা হচ্ছে ৬০ শয্যার শিশুদের জন্য সেফ হোম। শিশুদের পাশাপাশি এখানে মায়েরাও থাকতে পারবেন। পর্যাপ্ত শিশু চিকিৎসক,নার্সদেরও রাখা হবে এখানে। শিশুদের চিকিৎসায় ও যত্নে যাতে কোনও ত্রুটি না হয় সেব্যাপারে বিশেষ যত্নবান স্বাস্থ্য দফতর। তাদের জন্য পর্যাপ্ত অক্সিজেনেরও ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এদিকে ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড হেল্থ সবরকমভাবে সহযোগিতা করছে কলকাতা পুরসভাকে। এই সেফ হোমে ৬০টি শয্যা নিয়ে তৈরি হচ্ছে এই সেফ হোম। শিশুদের চিকিৎসা যথাযথ করার জন্য চিকিৎসকদের সবরকম প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে ইনস্টিটিউট অফ চাইল্ড হেলথ।

    কলকাতা পুরসভা ও স্বাস্থ্য দফতর গোটা বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখছে। করোনার তৃতীয় ঢেউ যাতে কোনওভাবেই একজন শিশুকেও কেড়ে নিতে না পারে তার জন্য সবরকম পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার। এব্যাপারে পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিমও বিশেষ নির্দেশ দিয়েছেন।

  • পেট্রল-ডিজেলের করের টাকায় করোনায় মৃত পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি রাহুলের

    সংবাদ সংস্থা : ‘এটা কোনও উপহার নয়। ক্ষতিপুরণ হল করোনায় মৃতদের পরিবারগুলির প্রাপ্য অধিকার।’ করোনায় মৃতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া নিয়ে কেন্দ্রের অবস্থানের তীব্র সমালোচনা করলেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তাঁর দাবি, কেন্দ্র পেট্রল-ডিজেল থেকে চার লক্ষ কোটি টাকা কর পাচ্ছে।

    তাহলে করোনায় মৃতদের ক্ষতিপূরণের জন্য আলাদা তহবিল হবে না কেন? প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতির প্রশ্ন, সরকার পেট্রল-ডিজেল থেকে যে ৪ লক্ষ কোটি টাকা কর তুলেছে, সেটা যাদের পরিবারের মানুষ মারা গেছেন, তাঁদের পকেট থেকেও গিয়েছে। রোজ সাধারণ মানুষের পকেট থেকে টাকা নেওয়া হচ্ছে। তাহলে কেন ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে না? মঙ্গলবার এক সাংবাদিক বৈঠকে করোনার ‘মিস-ম্যানেজমেন্ট’ নিয়ে একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করেন কংগ্রেস নেতা। বক্তব্য, করোনা শুধু যে একটি জৈবিক রোগ, তা নয়। এর প্রভাব অর্থনৈতিক-সামাজিক সব রকম।

    সরকারের উচিত বিরোধীদের কথা শোনা এবং করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের প্রস্তুতি নেওয়া। প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি বলছেন, কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ যদি খারাপ হয়ে থাকে, তাহলে করোনার তৃতীয় ঢেউ ভয়াবহ। আর সেই ভয়াবহ পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে সরকারকে সাহায্য করার লক্ষ্যেই এই দেড়শো পাতার শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছে কংগ্রেস।

  • ‘পশ্চিমবঙ্গ ভাগ হবে না’, সাফ জানালেন দিলীপ ঘোষ, দিলেন নেতাদের কড়া বার্তা

    স্টাফ রিপোর্টারঃ ‘বঙ্গভঙ্গে’র দাবি উঠেছে বিজেপির অন্দরে। কেউ উত্তরবঙ্গকে স্বাধীন রাজ্য করার দাবি জানিয়েছেন তো কউ আবার ‘রাঢ়বঙ্গ’কে পৃথক রাজ্য করার কথা বলছেন। এ ধরনের দাবি ঘিরে বিতর্ক দানা বেঁধেছে। বিজেপি বাংলাকে ভাঙতে চাইছে বলে প্রচারও শুরু হয়ে গিয়েছে।

    এর মাঝেই সাংবাদিক বৈঠক করে ‘পার্টিলাইন’ স্পষ্ট করে দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষ সাফ জানিয়ে দিলেন, “আলাদা রাজ্যের মত একান্ত ব্যক্তিগত। পশ্চিমবঙ্গ ভাগ হবে না, এটা দলের মত।” একইসঙ্গে পৃথক রাজ্যের দাবি জানানো নেতাদেরও কড়া বার্তা দিলেন দিলীপ। বললেন, “পার্টিতে থাকতে হলে দলের মত মেনে থাকতে হবে। আর পার্টিলাইন একটাই, পশ্চিমবঙ্গ ভাগ হবে না।

    ” একইসঙ্গে তাঁর খোঁচা, “যাঁরা এ দাবি জানাচ্ছেন তাঁরা বিভিন্ন দল থেকে বিজেপিতে এসেছে। বিজেপি এক রাজ্যের পক্ষেই সওয়াল করে।” দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

  • ছত্তিশগড়ের একটি গ্রাম থেকে চুরি গেল ৮০০ কেজি গোবর

    সংবাদ সংস্থা : কমবেশি প্রত্যেকদিনই অদ্ভুত নানান সব চুরির ঘটনা সামনে আসে। সাধারণত মূল্যবান কোনও জিনিসের প্রতিই নজর থাকে চোর-ডাকাতদের। কিন্তু কখনও গোবর চুরির ঘটনা শুনেছেন? শুনতে অবাক লাগলেও ছত্তিশগড়ের একটি গ্রাম থেকে সম্প্রতি চুরি গিয়েছে ৮০০ কেজি গোবর।

    যার আনুমানিক দাম প্রায় ১৬০০ টাকা। ইতিমধ্যে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। চোরদের পাকড়াও করতে শুরু হয়েছে তদন্তও।সংবাদসংস্থা পিটিআইয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গত ৮ জুন মধ্যরাতে ঘটনাটি ঘটেছে ছত্তিশগড়ের কোরবা জেলার ধুরেনা গ্রামে। দিপকা থানার পুলিশ আধিকারিক হরিশ তান্ডেকর জানিয়েছেন, ১৫ জুন গৌথান সমিতির গ্রামের প্রধান কামহান সিং কানওয়ার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

    তবে রবিবার বিষয়টি সামনে এসেছে। পুলিশ আধিকারিকদের বক্তব্য, বাজারে ওই ৮০০ কেজি গোরবের দাম মোটামুটি ১,৬০০ টাকার মতো পড়বে। কিন্তু কে বা কারা চুরি গোবর করেছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেইসঙ্গে কী কারণে গোবর চুরি করা হয়েছে, তা নিয়েও ধন্দে আছে পুলিশ।

  • কোভিডের তৃতীয় ঢেউয়ের মোকাবিলার দফায় দফায় বৈঠক কুলপি ব্লক প্রশাসনের

    সানওয়ার হোসেন, কুলপি: মঙ্গলবার কোভিডের তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলার বিশেষ বৈঠক করলেন কুলপি ব্লক প্রশাসন। এদিন ক্লাব, এনজিও, ইমাম-মোয়াজ্জেম ও বাজার কমিটিকে নিয়ে বিশেষ আলোচনা হয় দফায় দফায়।

    বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কুলপি ব্লক অধিকারী দেবর্ষি মুখোপাধ্যায়, ঢোলাহাট ও কুলপি পুলিশ প্রশাসন, বিধায়ক যোগরঞ্জন হালদার, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও সহকারী সভাপতি প্রমুখ। সকলকে কোভিড পরিস্থিতি কঠোর ভাবে মেনে চলার আবেদন জানানো হয়। প্রয়োজনে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা নেওয়ার পরামর্শ দিলেন ব্লক আধিকারিক।

Back to top button

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home2/biswasam/public_html/wp-includes/functions.php on line 4757