‘‌কেন্দ্রের টাকা নয়ছয় হচ্ছে’‌, প্রধানমন্ত্রীকে নালিশ শুভেন্দুর, পাল্টা তৃণমূল

স্টাফ রিপোর্টার: শুক্রবারই রাজ্যের প্রতি কেন্দ্রের বঞ্চনা, পাওনা অর্থের খতিয়ান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সামনে তুলে ধরেছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর ঠিক তার পরের দিনই শনিবার রাজ্যের বিরুদ্ধে নালিশ করে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

রাজ্যের বিরোধী দলনেতা চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীকে লিখেছেন, ‘‌মহাত্মা গান্ধী ন্যাশনাল রুরাল এমপ্লয়মেন্ট গ্যারান্টি অ্যাক্ট (এমজিএনআরইজিএ), প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার মতো প্রকল্পে কেন্দ্রের বরাদ্দ টাকা তছরুপ করা হয়েছে। নয়ছয় হচ্ছে। কেন্দ্রীয় প্রকল্পের নামও বদল করা হচ্ছে। দিনের পর দিন এই দুর্নীতি বেড়েই চলেছে। গরিব মানুষ টাকা পাচ্ছেন না। ভুল শংসাপত্র দেওয়া হচ্ছে।

কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা নয়ছয় করছে রাজ্য সরকার।’‌রাজ্য যাতে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা না পায় তাই বিরোধী দলনেতা লিখেছেন, ‘‌কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা সঠিক খাতে ব্যবহার করে না রাজ্য প্রশাসন। এখানে দুর্নীতি হয়। আর একশ্রেণির বিডিও–সুপারভাইজাররা এই দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত।

নথিতে রাজ্য সরকার দেখায়, হাজার হাজার হেক্টর জমিতে ম্যানগ্রোভ এবং অন্য চারা গাছ রোপণ করা হয়েছে। আধিকারিকরা যখন পরিদর্শন করতে যান, তখন রাজ্যের পক্ষ থেকে বলা হয় ইয়াস, আমফান এবং অন্যান্য প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে চারা গাছ নষ্ট হয়ে গিয়েছে।

এভাবেই দুর্নীতি হচ্ছে।’‌পালটা অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেসও।তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন পালটা আক্রমণ করে বলেন, শুভেন্দুর চিঠিতে রাজনৈতিক অস্তিত্ব সংকটের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। আসলে মোদির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাক্ষাতের পর যদি বকেয়া অর্থ রাজ্য পেয়ে যায়, তাহলে অনেকেই অস্বস্তিতে পড়বে।

যারা চায় না রাজ্যের উন্নতি হোক, তাদের মুখে ঝামা ঘষে দেওয়া যাবে। সেই কারণেই এ ধরনের অভিযোগ তুলে রাজ্যের উন্নতির পথ স্লথ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!