নতুন রূপে সেজে উঠবে বকখালি, জানালেন পর্ষদের চেয়ারম্যান

বিশ্ব সমাচার, নামখানা : বকখালি পর্যটন কেন্দ্রকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে নানান পদক্ষেপ গ্রহণ করল গঙ্গাসাগর ও বকখালি উন্নয়ন পর্ষদ। অতীতে এই ‌ পর্ষদের অধীনে নামখানা ব্লকের দুটি মৌজা ছিল। তবে বর্তমানে নামখানা ব্লকের আরও ৬টি মৌজা যুক্ত হয়ে, এই পর্ষদের অধীনে মোট ৮টি মৌজা হয়েছে।

এই ৮টি মৌজাকেই আধুনিক প্রযুক্তিতে সাজিয়ে তোলা হবে। এবিষয়ে গঙ্গাসাগর ও বকখালি উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান শ্রীমন্ত মালি জানান, বনদপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। বকখালিতে হরিণের একটি পার্ক তৈরি করা হবে। এছাড়াও পর্যটকদের দেখার জন্য কুমির রাখার ব্যবস্থা করা হবে। বকখালির প্রবেশদ্বারে একটি স্বাগতম গেট তৈরি করা হবে।

এসবের পাশাপাশি দশমাইল এলাকায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি মার্কেটিং কমপ্লেক্স তৈরী করা হবে। আধুনিক প্রযুক্তিতে সেজে উঠবে বকখালি পর্যটন কেন্দ্র।তিনি আরও বলেন, ফ্রেজার সাহেবের স্বপ্নের জায়গা ফ্রেজারগঞ্জকেও আধুনিক প্রযুক্তিতে সাজিয়ে তোলা হবে। ওই এলাকায় সৌন্দর্যায়ন করা হবে।

এছাড়াও বকখালিতে একটি বাস টার্মিনাল গড়ে তোলা হবে। পর্যটকদের গাড়ি রাখার জন্য আলাদাভাবে একটি ছোট বাসটার্মিনালও তৈরী করা হবে। এসবের পাশাপাশি বকখালিতে একটি বড় জলাশয় অধিগ্রহণ করা হয়েছে। ওই জলাশয়ে ভাসমান বাজার তৈরি করা হবে। এছাড়াও পর্যটকদের আকর্ষণ করতে বকখালিতে একটি মিউজিয়াম তৈরি করা হবে।

তবে খুব শীঘ্রই বকখালির সৌন্দর্যায়নের কাজ শুরু হবে। হাতানিয়া দোয়ানিয়া নদীতে সেতু তৈরি হওয়ার ফলে গুরুত্ব বেড়েছে বকখালির। মূলত পর্যটকদের কাছে বকখালিকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে উন্নয়ন পর্ষদের এই ভাবনা।

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!