নতুন করে সেজে উঠবে গঙ্গাসাগর ও বকখালি পর্যটন কেন্দ্র

বিশ্ব সমাচার, কাকদ্বীপ : আগামী দিনে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার গঙ্গাসাগর ও বকখালি পর্যটন কেন্দ্রকে আরও সাজিয়ে তোলা হবে। পর্যটন বিকাশের লক্ষ্যে একাধিক পরিকল্পনা নেওয়া হল রাজ্যের অন্যতম পুণ্যভমি গঙ্গাসাগর ও সমুদ্র সৈকত বকখালির জন্য। বুধবার সুন্দরবন-‌বকখালি উন্নয়ন পর্ষদ বা জিবিডিএ-‌র ১৭তম বার্ষিক সভা থেকে একগুচ্ছ পরিকল্পনা ও প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়।

কাকদ্বীপ মহকুমা শাসকের দপ্তরে এই বার্ষিকসভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা শাসক পি উলগানাথন, সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী বঙ্কিমচন্দ্র হাজরা, সুন্দরবন উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান তথা বিধায়ক সমীর জানা, জিবিডিএ-‌র চেয়ারম্যান শ্রীমন্ত মালি, কাকদ্বীপের মহকুমা শাসক অরণ্য ব্যানার্জি সহ পর্ষদের আধিকারিকরা।

এদিনের সভায় বাজেট প্রস্তাব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। আগামী বছরের মধ্যে গঙ্গাসাগরকে নতুন রুপে সাজিয়ে তোলার জন্য একগুচ্ছ প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছে। এবিষয়ে জেলাশাসক পি উল্গানাথন জানান, গঙ্গাসাগরকে আধুনিক পরিকাঠামোয় সাজিয়ে তোলা হবে। গঙ্গাসাগর নিম্নভূমিকে সাজিয়ে তুলতে অন্যান্য দপ্তরকেও কাজে লাগানো হবে।

এ বিষয়ে গঙ্গাসাগর ও বকখালি উন্নয়ন পর্ষদ একটি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করবে। প্রায় ৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে গঙ্গাসাগরকে আধুনিক পরিকাঠামোয় সাজিয়ে তোলা হবে। তবে লট নম্বর- ৮ এ একটি বাসস্ট্যান্ড তৈরি করা হবে। জমি চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়াও সার্কিট হাউস ও এক্সিবিশন মল তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে।

ইতিমধ্যেই একটি কমিউনিটি হল তৈরি করার কাজ চলছে। একটি ধ্যান কেন্দ্র গড়ে তোলারও পরিকল্পনা রয়েছে।
তবে সাগর ও নামখানা ব্লকের ২৩টি মৌজা নিয়ে গড়ে উঠেছে সাগর ও বকখালি উন্নয়ন পর্ষদ। এই পর্ষদের অধীনে সমুদ্র সৈকত বকখালিকেও সাজিয়ে তোলা হবে বলে জানালেন মন্ত্রী বঙ্কিমচন্দ্র হাজরা ও পর্ষদের চেয়ারম্যান শ্রীমন্ত মালি।

এছাড়া সাগরের রুদ্রনগর ও নামখানার দশমাইলে দুটি মার্কেট কমপ্লেক্স গড়ে তোলা হবে। সেখানে বেকার যুবক-‌যুবতীদের ব্যবসার সুযোগ মিলবে।এদিন জিবিডিএ- এর বার্ষিক সভার শেষে মহকুমা শাসকের দপ্তরে জনসংযোগ কর্মসূচিরও আয়োজন করা হয়। এই কর্মসূচি থেকে সাধারণ মানুষের নানান সমস্যার সমাধান করা হয়।

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!