৩৫০ জন কর্মী ও সমর্থক যোগ দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসে

রবীন্দ্রনাথ সামন্ত, পাথরপ্রতিমা : শুক্রবার সিপিএম, কংগ্রেস এবং বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন ৩৫০ জন কর্মী ও সমর্থক। এদিন তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন পাথরপ্রতিমার বিধায়ক সমীর কুমার জানা। এ বিষয়ে তিনি বলেন, “মা মাটি মানুষের সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ কর্মের উন্নয়নকে সামনে রেখে এদিন দক্ষিণ গঙ্গাধরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গাজি পাড়া ৪ নম্বর বুথের বিরোধী শিবিরের কর্মী সমর্থক তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছেন।”

তিনি আরও বলেন, “কেন্দ্রে যখন কংগ্রেস সরকার ছিল, সেই সময় রাজ্যে বামফ্রন্ট সরকার। কংগ্রেস এবং সিপিএম যোগসুত্র করে কাজকর্ম করত। যা মমতা ব্যানার্জি পছন্দ করতেন না। আর তখন সিপিএম রাজ্যে অন্যায়,অত্যাচার এবং অবিচার করত সাধারন মানুষের উপর। যার প্রতিবাদ করতে গিয়ে ছয় ছয় বার মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন মমতা ব্যানার্জি। কিভাবে মানুষকে পাশে নিয়ে অত্যাচারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হয়, তা সেদিন দেখিয়ে ছিলেন এবং জেহাদ ঘোষণা করেছিলেন।

তাই ১৯৯৭ সালে ২৩ ডিসেম্বর কংগ্রেস থেকে মমতা ব্যানার্জি বেরিয়ে এসেছিলেন বলে সমীরবাবু বলেন। এরপর ১৯৯৮ সালের পয়লা জানুয়ারিতে মমতা ব্যানার্জি তৃণমূল কংগ্রেস দল তৈরী করেন। তারপর ২০০৮ সালে দলের বিস্তার ঘটতে থাকে। ২০১১ সাল থেকে এখনও পর্যন্ত জনগণের আশীর্বাদ নিয়ে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করছেন বলে, পাথর প্রতিমার বিধায়ক জানান। তাই এদিন সাধারণ মানুষ বিরোধী শিবির ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকাতলে শামিল হয়েছে।” এ বিষয়ে পাথরপ্রতিমার কংগ্রেসের সভাপতি শুভ্রাংশু শেখর নায়েক জানান, মানুষের মধ্যে তৃণমূল গুজব ছড়াচ্ছে।

গাজীপুর ৪ নম্বর বুথে ভোট পেয়ে কংগ্রেস ওখানে নির্বাচিত হয়েছে। অন্যদিকে বিজেপি কর্মী সমর্থক এদিন তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেয়নি বলে জানান, ব্লক বিজেপি নেতা সুনির্মল দাস। অপরদিকে সিপিএম এর কোন কর্মী সমর্থক তৃণমূলে যোগ দেয়নি বলে, ব্লক সিপিএমের পক্ষ থেকে জানানো হয়। তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, সিপিএম, বিজেপি ও কংগ্রেসের কর্মী ও সমর্থকরা তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন।

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!