23 Sep 2021, 2:47 AM (GMT)

Coronavirus Stats

33,586,892 Total Cases
446,279 Death Cases
32,832,371 Recovered Cases
খবররাজ্য

সাংগঠনিক রদবদল তৃণমূলে, পদ খোওয়ালেন একাধিক মন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টারঃ গত জুন মাসে সাংগঠনিক বৈঠকের পর দলের সর্বভারতীয় সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসে এক ব্যক্তি এক পদ নীতি গ্রহণ করা হয়েছে। ফলে সাংগঠনিক দায়িত্বে থাকা নেতা-মন্ত্রীদের আগামী দিনে সেই দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হতে পারে। সেই মতো সোমবার এক ব্যক্তি এক পদ নীতি মেনে তৃণমূলে সাংগঠনিক রদবদল৷ জেলা সভাপতির পদ থেকে সরানো হল রাজ্যের একাধিক মন্ত্রীদের৷ একইসঙ্গে সোমবার প্রতিটি জেলাকে সাংগঠনিকভাবে আলদা আলদা ভাবে ভাগও করা হল। এদিন সাংগঠনিক জেলার যে রূপরেখা প্রকাশ করা হয়েছে, তাতে আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার এবং জলপাইগুড়ি জেলা পুরনো সাংগঠনিক অবস্থানে থাকলেও দার্জিলিং জেলাকে দুটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে – একটি হল দার্জিলিং পার্বত্য৷

যেখানে থাকছে দার্জিলিং, কার্শিয়াং ও কালিম্পং – এই তিনটি বিধানসভা। আর দার্জিলিং সমতলের এর মধ্যে থাকছে শিলিগুড়ি, মাটিগাড়া-নকশালবাড়ি ও ফাঁসিদেওয়া – এই তিনটি বিধানসভা৷ মুর্শিদাবাদ জেলাকে আবার দুটি ভাগ করা হয়েছে একটা হল জঙ্গিপুর, অন্যটি মুর্শিদাবাদ-বহরমপুর৷ নদিয়া জেলাকেও দুটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে৷ নদিয়া উত্তর অর্থাৎ কৃষ্ণনগর সাংগঠনিক জেলা ও নদিয়া দক্ষিণ অর্থাৎ রানাঘাট সাংগঠনিক জেলা। উত্তর ২৪ পরগনাকে চারটি সাংগঠনিক জেলায় বিভক্ত করা হয়েছে। দমদম-ব্যারাকপুর সাংগঠনিক জেলা, বারাসত সাংগঠনিক জেলা, বসিরহাট সাংগঠনিক জেলা এবং বনগাঁ সাংগঠনিক জেলা। দক্ষিণ ২৪ পরগনাকে দুটি ভাগে বিভক্ত করা হয়েছে, সেগুলি হল ডায়মন্ডহারবার-যাদবপুর এবং সুন্দরবন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলাকে কাঁথি এবং তমলুক সাংগঠনিক জেলায় ভাঙা হয়েছে।

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা বিভক্ত হয়েছে ঘাটাল এবং মেদিনীপুর হিসেবে৷ বাঁকুড়া জেলাকে বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা এবং হুগলি জেলাকে হুগলি-শ্রীরামপুর ও আরামবাগ জেলায় ভাগ করা হয়েছে। এদিন জেলা সভাপতি হিসেবে একাধিক মন্ত্রী যাঁরা দায়িত্বে ছিলেন তাঁদেরও সরানো হয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম নাম জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক৷ উত্তর ২৪ পরগনার জেলা সভাপতি ছিলেন তিনি। তাঁর বদলে জেলায় চারজন সাংগঠনিক সভাপতি হয়েছেন। দমদম-ব্যারাকপুরের সভাপতি পার্থ ভৌমিক, বারাসত জেলা সভাপতি অশনি মুখোপাধ্যায়, বসিরহাটে সরোজ বন্দ্যোপাধ্যায় আর বনগাঁয় আলোরানি সরকার।

একইভাবে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সভাপতির পদ থেকে সরানো হয়েছে সৌমেন মহাপাত্রকে। সেখানে সভাপতি হয়েছেন কাঁথির তরুণ মাইতি এবং তমলুকের দেবপ্রসাদ মণ্ডল। হাওড়া গ্রামীণের সভাপতি বদল করা হয়েছে৷ মন্ত্রী পুলক রায়কে সরিয়ে নয়া সভাপতি হয়েছেন অরুণাভ সেন। হাওড়া শহর সভাপতির পদ থেকেও মন্ত্রী অরূপ রায়কে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ কলকাতা উত্তরে সভাপতি পদ থেকে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরিয়ে নতুন সভাপতি করা হয়েছে তাপস রায়কে৷ এ ক্ষেত্রে সুদীপবাবু উত্তর কলকাতার চেয়ারম্যান হয়েছেন।

Related Articles

Back to top button