19 Jun 2021, 6:38 AM (GMT)

Coronavirus Stats

29,853,870 Total Cases
385,815 Death Cases
28,725,030 Recovered Cases
Top Newsখবর

শিবরাত্রীর দিন কি নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মনোনয়নপত্র জমা দিচ্ছেন, জোর জল্পনা

রাজকুমার সূত্রধর: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি শিবরাত্রীর
দিন ১৯ শে মার্চ নন্দীগ্রাম আসনে তৃণমূলের হয়ে মনোনয়ন পত্র জমা
দিতে চলেছেন? এ নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।

জোড়া ফুল শিবিরের
অন্দরমহলে এ নিয়ে কানাঘুষো শুরু হয়েছে। কালীঘাটে মমতার বাড়ির ভিতর
থেকে এমন একটা আভাষ পাওয়া গিয়েছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে।
ওই সূত্রে বলা হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী কয়েকদিন আগে তাঁর কিচেন
ক্যাবিনেটে শিবরাত্রীর দিন মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ
করেন।

তারপরই বিষয়টি পল্লবিত হয়ে মুখে মুখে বাইরে চলে এসেছে।
শুভেন্দু অধিকারি বিজেপির চলে যাওয়া ও তারপর থেকে তাঁর বিরুদ্ধে
সমালোচনার পাল্টা চ্যালেঞ্জ হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী এবার নন্দীগ্রামে
দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন। প্রসঙ্গত, তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিটে
নন্দীগ্রাম থেকে শুভেন্দু বিধায়ক হয়েছেন। পরে মন্ত্রীও হন।
স্বাভাবিকভাবে মমতা চাইছেন, নন্দীগ্রাম থেকে দাঁড়িয়ে শুভেন্দুকে
হারিয়ে বিজেপিকে যাবতীয় জবাব তিনি দিয়ে দেবেন।

পাশাপাশি তিনি বুঝিয়ে
দিতে চান, তাঁর দলে তিনি ছাড়া আর কেউ ভোট ক্যাচার নন। ভোটাররা
তাঁকে দেখেই ভোট দেন। সেই ভোটেই শুভেন্দু জিতেছেন। স্বাভাবিকভাবে
বিজেপি শুভেন্দুকে দল থেকে ভাঙিয়ে নিয়ে গিয়ে তাঁর কোনও ক্ষতি করতে
পারেনি। সেটা আগামী নির্বাচনে শুভেন্দুকে হারিয়ে এটা আরও একবার
প্রমাণ করে দেবেন তিনি।

রাজ্যে আট দফায় নির্বাচন হচ্ছে। দ্বিতীয়
দফায় আগামী ১ এপ্রিল নন্দীগ্রামে ভোট হচ্ছে। যতদূর জানা গিয়েছে,
আগামী১৯ মার্চ তৃণমূল নেত্রী তমলুকের মহকুমাশাসকের দপ্তরে গিয়ে
মনোনয়নপত্র দাখিল করতে পারেন। প্রসঙ্গত, গত ১৮ জানুয়ারি পূর্ব
মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামের তেখালি মাঠে জনসভায় দাঁড়িয়ে মমতা এই
কেন্দ্র থেকে ভোটে দাঁড়ানোর ইচ্ছ প্রকাশ করেন।

তারপরই শুভেন্দু
ঘোষণা করেন, মাননীয়া এখানে দাঁড়ালে তিনি তাঁকে ৫০ হাজার ভোটে
হারাবেন। তিনি এ কথাও বলেছিলেন, যে এই কেন্দ্রে ৬২ হাজার সংখ্যালঘু
ভোট রয়েছে। সেই ভরসায় মাননীয়া দাঁড়াচেছন। রাজনৈতিক মহলের কথায়,
মুখ্যমন্ত্রী শুভেন্দুর এই কথাটা বুঝতে পেরে শিবরাত্রীকেই বেছে
নিয়েছেন।

কারণ, সংখ্যালঘুর ভোট পাওয়ার পাশাপাশি তাঁকে সংখ্যাগুরুর
ভোট পেতে হবে। তবে এর ভিতর একটা অশনি সঙ্কেত হল, বাম,কং ও
আব্বাস সিদিদকির জোট। কারণ, নন্দীগ্রাম আসনটি ভাইজানের দলকে
ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ফলে শেষ পর্যন্ত কি হবে-তা সময় বলে দেবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button