29 Jul 2021, 11:13 AM (GMT)

Coronavirus Stats

31,528,114 Total Cases
422,695 Death Cases
30,701,612 Recovered Cases
খবরদক্ষিণ ২4 পরগণা

নামখানায় একসঙ্গে ৩ ভাই নিখোঁজ, অন্ধকারে দাস পরিবার

রবীন্দ্রনাথ মন্ডল ও অমিত মন্ডল, নামখানা : জীবিকার তাগিদে বাড়ি ছেড়ে ভিন রাজ্যে কাজের জন্য পাড়ি দিয়েছিলেন দাস পরিবারের ৩ ভাই। দীর্ঘ প্রায় ৪ বছর ধরে এভাবেই জীবিকার তাগিদে নামখানার গণেশনগরের ২-এর ঘেরীর বাসিন্দা শুকদেব দাস, শান্তিরাম দাস ও সুশান্ত দাস কেরালার একটি ট্রলারে কাজ করছেন। তবে এতদিন পর্যন্ত তাঁদের সব ঠিকঠাকই চলছিল। ২০২১ সালে তাঁরা বিধানসভা নির্বাচনের সময় নিজেদের নাগরিকত্বের অধিকার প্রয়োগ করতে বাড়িতে এসেছিলেন। নিজেদের ভোটদান করে আবারও তিন ভাই জীবিকার তাগিদে পাড়ি দিয়েছিলেন সুদূর কেরালায়। এরপর ৫ই মে তাঁরা ট্রলারে করে মাছ ধরার জন্য সমুদ্রে বেরিয়ে যান। তবে সমুদ্রে যাওয়ার আগে ৩ ভাই মোবাইলের মাধ্যমে তাঁদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন। স্ত্রী পুত্র ও বাড়ির সকলের তাঁরা খোঁজ খবরও নেন। আর দেরি না করে সেদিন রোজগারের আশায় ওই ট্রলারের ১৬ জন মৎস্যজীবী গভীর সমুদ্রে পাড়ি দিয়েছিলেন। এরপর কেটে গিয়েছে প্রায় দু’মাস। কিন্তু আজও পর্যন্ত দাস পরিবারের ৩ ভাইয়ের কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। কেরালায় কি ঘটেছে, তাও পরিষ্কার নয় দাস পরিবারের কাছে। তাঁরা শুধু শুনেছেন, ওই ট্রলারটির কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে দাস পরিবারের আর এক ছেলে স্বপন দাস জানান, “৫ মে ৩ ভাই মিলে ট্রলারে করে মাছ ধরতে গিয়ে ছিল। কিন্তু প্রায় দু’মাস হয়ে গেল আজও তাদের খোঁজ পাওয়া যায়নি। কোনভাবে ৩ ভাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগও করা যাচ্ছে না।লকডাউন থাকার কারণে কেরালায় যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ট্রলার মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল, ট্রলারটি নিখোঁজ রয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।” এই অবস্থায় প্রশাসন ও সরকারের সাহায্যে দাবি জানিয়েছেন নিখোঁজের পরিবার।কেটে গিয়েছে বহুদিন। আজও অন্ধকারে রয়েছেন দাস পরিবারের সদস্যরা। প্রতিবেশীরাও বাকরুদ্ধ। এই পরিস্থিতিতে প্রতিবেশীরা প্রতিদিন শুকদেব, শান্তিরাম ও সুশান্তর বাড়িতে এসে খোঁজ নিয়ে যান। আর শেষে তাঁদের দিয়ে যান একরাশ সান্তনা।সান্তনার বাণীই এখন তাঁদের ভরসা। নিখোঁজ হয়ে যাওয়া শুকদেব, শান্তিরাম ও সুশান্ত বাড়িতে ফিরবেই, এই আশাতেই আজও দোর গোড়ায় বসে অপেক্ষায় থাকেন তাঁদের পরিবার।

Related Articles

Back to top button