19 Jun 2021, 7:08 AM (GMT)

Coronavirus Stats

29,853,870 Total Cases
385,815 Death Cases
28,725,030 Recovered Cases
খবরদক্ষিণ ২4 পরগণা

তৃণমূলের মানুষে মানুষে বিভাজন করার খেলা ধরে ফেলেছি বলেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সমালোচনা করছেন : আব্বাস

রাজকুমার সূত্রধর: রাজ্যের তৃতীয় দফায় ভোট শুরুর আগে দক্ষিণ ২৪
পরগনা জেলার রায়দিঘিতে প্রচারে এসে ফুরফুরা শরিফের ভাইজানের নাম
না করে পরোক্ষভাবে তাঁকে বিঁধলেন। বললেন, ‘হায়দরাবাদ থেকে বিজেপির
এক বন্ধু এসেছে। সঙ্গে ফুরফুরার এক চ্যাংড়াকে নিয়েছে।’ এই বক্তব্য
স্পষ্ট করে দিয়েছে, ভাইজানকে ঠেস মেরে এই কথা বলছেন মুখ্যমন্ত্রী।
কিন্তু কেন? কারণ, রাজ্যের হয়ে যাওয়া দু’ দফার ৬০টি আসনে ভোটের
পর তৃণমূল নেত্রীর কাছে একটা বার্তা গিয়েছে। তা হল, সংখ্যালঘু ভোট
ব্যাঙ্ক যা ছিল তৃণমূলের একচেটিয়া, তাতে ভাগাভাগি করে দিয়েছেন
ভাইজান। তার ধাক্কা ওই সব আসনে পড়েছে। ফলে এতদিন মুখ বুঁজে
থাকলেও আর চুপ করে থাকতে পারলেন না। কারণ, রায়দিঘিতে প্রচারে
গিয়ে সেই ভোট ভাগের কথা দলের কাছ থেকে তাঁকে শুনতে হয়েছে। আর
তাতেই মনে মনে চটেছেন তিনি। তার ফলশ্রুতি এবার ভাইজানের
সমালোচনায় নামলেন। তবে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যর পাল্টা উত্তর
দিয়েছেন আইএসএফ এর প্রধান আব্বাসউদ্দিন সিদিদকি। তিনি বলেছেন,
‘উনি অহঙ্কারী, মানুষকে মানুষ মনে করেন না। একই সঙ্গে আব্বাসের
দাবি, মুসলমানরা ওঁর সঙ্গে নেই বলেই উনি উল্টোপাল্টা বলছেন।’
বাম ও কংগ্রেসের সংযুক্ত মোর্চার জোট হচ্ছে আব্বাসের আইএসএফ।
রাজ্যের ২৮ টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে আইএসএফ। এর ভিতর দক্ষিণ
২৪ পরগনার ৪টি আসনে খাম প্রতীকে লড়ছে। শনিবার রায়দিঘিতে প্রচারে
এসে সেই আব্বাসকে লক্ষ্য করে মমতা বলেন, মুসলিম ভোট ভাগ করে
বিজেপিকে সুবিধা করে দিতে এসেছে। তাঁর কথায়, ‘ওরা কয়েক কোটি টাকা
খরচ করে মুসলিম ভোট ভাগাভাগির চেষ্টা করছে। ওদের একটা ভোটও
নয়। ওদের ভোট দেওয়া মানে বিজেপিকে ভোট দেওয়া’। এর পাল্টা আব্বাস
বলছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ১০ বছর ধরে মুসলিম সমাজকে বোকা
বানিয়েছেন। মুসলিম সমাজকে মারার জন্য বিজেপিকে পশ্চিমবঙ্গে
ঢোকাচ্ছন। এর জবাব রাজ্যের মানুষ দেবেন। তিনি বলেন, রাজ্যের দলিত
হিন্দু, দলিত, আদিবাসী, সাঁওতাল সবাই মুসলমানদের ভালোবাসে। আমরা
ভাইয়ে ভাইয়ে মিশে আছি। তিনি বলেন, আমার সম্প্রদায় সহ পিছিয়ে পড়া
মানুষের অধিকার আদায়ের যে লড়াইয়ে নেমেছি তাতে সবাই আমার ডাকে
সাড়া দিচেছন। আব্বাসের কথায়, বাংলাকে বিজেপির হাতে তুলে দেওয়ার
জন্য যে বড় অঙ্কের টাকার চুক্তি ছিল, সেটা পাচ্ছেন না বলেই মমতা
বন্দ্যোপাধ্যায় উল্টোপাল্টা বকছেন। মমতা তাঁকে ফুরফুরার চ্যাংরা
বলায়, আব্বাস তা গায়ে মাখতে চান না। তিনি বলেন, আমাকে ছোটবড় কথা
বলছেন না। উনি বড়দের তুই তুকারি করেন। আসলে তৃণমূল মানুষকে নিয়ে
খেলছিল। বোকা বানিয়ে বিভাজনের চেষ্টা করছিল। সেখা আমি হতে দেব
না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝতে পেরেছেন যে, তাঁর চাল ঘেঁটে দিয়েছে
আব্বাস। তাই আমার নাম করে সমালোচনা করছেন।

Related Articles

Back to top button