24 Jul 2021, 4:36 AM (GMT)

Coronavirus Stats

31,331,145 Total Cases
420,038 Death Cases
30,495,352 Recovered Cases
খবরদুনিয়াদেশ

‘এক বিশ্ব, এক স্বাস্থ্য’, জি-৭ সম্মেলনে বার্তা মোদীর

সংবাদ সংস্থাঃ ‘এক বিশ্ব, এক স্বাস্থ্য’। শুধু করোনাভাইরাস নয়, আগামিদিনে যে কোনও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি অবস্থার সময় জি-৭ গোষ্ঠীকে সংঘবদ্ধভাবে লড়াইয়ের আহ্বান জানালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী। গত শুক্রবার থেকে ইংল্যান্ডে শুরু হয়েছে এই সম্মেলন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন থেকে শুরু করে ফ্রান্স, কানাডা, জাপান, জার্মানি, ইতালির মতো উন্নত দেশগুলির রাষ্ট্রপ্রধানরা তাতে যোগ দিয়েছেন। শনিবার ভারচুয়ালি বক্তব্য পেশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও। যদিও ভারত জি৭ গোষ্ঠীর সদস্য নয়, তবুও জনসনের বিশেষ আমন্ত্রণে বক্তব্য রেখেছেন মোদি।

দক্ষিণ-পশ্চিম ইংল্যান্ড কর্নওয়েলে অনুষ্ঠিত জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের ভার্চুয়াল ভাষণে সুরক্ষিত এবং স্বাস্থ্যবান বিশ্বের পক্ষে সওয়াল করেন মোদী। শনিবারের সম্মেলনে করোনা মহামারী থেকে ঘুরে দাঁড়ানো এবং ভবিষ্যতে অন্য কোনও মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য আগেভাগেই প্রস্তুতি সেরে রাখার উপর জোর গুরুত্ব আরোপ করা হয়।

ভবিষ্যতে মহামারী রোখার জন্য গণতান্ত্রিক এবং স্বচ্ছ সমাজের বিশেষ দায়িত্বের উপর জোর দেন মোদী। তিনি জানান, জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের ভার্চুয়াল সেশন থেকে ‘এক বিশ্ব, এক স্বাস্থ্য’-এর বার্তা ছড়িয়ে দেওয়া উচিত। জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মের্কেলও সেই একই বার্তা দেন।

মোদী জানান, কীভাবে সরকার, শিল্প সংস্থা এবং নাগরিক সমাজ একত্রিতভাবে মহামারীর মোকাবিলা করেছে। করোনা আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা মানুষ এবং করোনাভাইরাস টিকাকরণের ক্ষেত্রে কীভাবে ডিজিটাল মাধ্যমকে কাজে লাগানো হয়েছে, সে বিষয়েও জানান তিনি। মোদী জানান, অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের সঙ্গে নিজেদের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিতে তৈরি ভারত।

পাশাপাশি করোনা টিকার ক্ষেত্রে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) কাছে সাময়িকভাবে করোনাভাইরাস টিকার উপর থেকে মেধাসত্ত্বের অধিকার বা ‘ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি রাইট’ (আইপিআর) প্রত্যাহারের যে আর্জি জানিয়েছে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকা, তা জি-৭ গোষ্ঠীর ভার্চুয়াল ভাষণেও তুলে ধরেন মোদী। জি-৭ গোষ্ঠীর সমর্থন চান তিনি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন আধিকারিক জানিয়েছেন, পেটেন্ট প্রত্যাহারের ক্ষেত্রে ভারতকে সমর্থন জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। যিনি শনিবার বিশেষভাবে আমন্ত্রিত ছিলেন। সমর্থন এসেছে আরও কয়েকটি দেশের তরফ থেকে।

দেশের মধ্যে টিকা উৎপাদনে আরও গতি আনার জন্য কাঁচামাল জোগানের ক্ষেত্রে নয়াদিল্লি কোনওকম বাধা চাইছে না বলে জানিয়েছেন ওই আধিকারিকরা। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়ের মাকরঁও মন্তব্য করেন, টিকার উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য ভারতের মতো দেশে পর্যাপ্ত পরিমাণে কাঁচামাল দিতে হবে।

Related Articles

Back to top button